sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » বিজেপিই ধর্মভিত্তিক রাজনীতি শুরু করেছে’, জয় নিয়ে শতভাগ আশাবাদী মমতা




পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি : সংগৃহীত ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বর্তমান শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসই ফের ক্ষমতায় বসবে বলে শতভাগ আশাবাদী তৃণমূল নেত্রী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার দাবি, একুশের বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ২২১টির বেশি আসনে জয় পাবে তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু, তৃণমূলে এত ভাঙন, দলের মধ্যে ক্ষোভ-বিক্ষোভের পাশাপাশি বিজেপি ও বাম-কংগ্রেস জোটের ধারাবাহিক আক্রমণের মুখে দাঁড়িয়ে কোন সমীকরণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তৃণমূল কংগ্রেস পেতে পারে ২২১টির বেশি আসন? নিজেই তার ব্যাখ্যা দিলেন মমতা। কলকাতায় ইন্ডিয়া টুডের কনক্লেভ ইস্ট-২০২১ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে অনেক কথাই বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবারের নির্বাচনি ময়দানে মমতা নিজেকে ‘স্ট্রিট ফাইটার’ হিসেবে দাবি করে বলেন, একুশের নির্বাচন নতুন কোনো নির্বাচন নয়। এর আগে রাজ্যে যেসব নির্বাচন হয়েছে এবারের নির্বাচন তার থেকে ব্যতিক্রম কিছু নয়। এই নির্বাচনও হবে ইস্যুভিত্তিক নির্বাচন। যার মধ্যে তৃণমূলের জয়ের নিশ্চিত ইস্যু হলো, রাজ্যের ১০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়া। রাজ্যের পাঁচ লাখ পরিবারকে ফ্রি স্বাস্থ্য বীমা করে দেওয়া। মমতা দাবি করেন, রাজ্যের ৯৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ মানুষ রাজ্য সরকারের কোনো না কোনো প্রকল্পের দ্বারা সুবিধা পেয়েছেন। যার ওপর দাঁড়িয়েই মূলত মমতা একুশের বিধানসভা নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে পূর্ণ আশাবাদী। মমতা জানান, তৃণমূল শুধু মানুষের পার্টি। তৃণমূল একমাত্র গণতন্ত্রেই বিশ্বাস করে। তাঁর অভিযোগ, শুধু বিজেপির কারণেই বাংলার মাটিতে জাতি ও ধর্মভিত্তিক রাজনীতি শুরু হয়েছে। বিজেপি মানুষের বিরুদ্ধে মানুষকে উসকে দিচ্ছে। বাঙালিদের মধ্যে বিভেদ তৈরি করে দিচ্ছে। কাউকে বাংলাদেশি, কাউকে বিহারি তকমা দিয়ে দিচ্ছে। বাংলার বুকে ভাষা নিয়েও লড়াই বাঁধিয়ে দেওয়া হচ্ছে। মমতার দাবি, উন্নয়নের নিরিখে ভোট হলে বিজেপি জানে তারা হেরে যাবে। যে কারণে বিজেপি আজ বাংলার মাটিতে গুণ্ডামি করছে বলেও অভিযোগ করেন মমতা। তিনি সাফ বলেন, আয়কর আর কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআইর নাম নিয়ে ভয় দেখানো হচ্ছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নাম উল্লেখ না করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আজ দুটি লোক মিলেই দেশ চালাচ্ছেন। মমতার অভিযোগ, দেশের সবচেয়ে দুর্নীতিযুক্ত দল হলো বিজেপি। যারা আজ তৃণমূল থেকে বিজেপিতে চলে যাচ্ছেন, তাঁরা সবাই দুর্নীতিগ্রস্ত বলেও দাবি করেছেন তিনি। নিজেদের বাঁচাতেই এই দল বদল বলেও মন্তব্য করেন মমতা। যাঁরা তৃণমূল থকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তাঁদের অনেকেই এবারের ভোটে জিততে পারবে না বলেও দাবি করেন তিনি। মমতা বলেন, ধর্ম হলো নিজের আর উৎসব হলো সবার। তবে তিনি তাৎপর্যপূর্ণভাবে বলেন, তাঁদের লড়াই রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের (আরএসএস) বিরুদ্ধে নয়, তাঁদের লড়াই বিজেপির বিরুদ্ধে। এমনকি তিনি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়েও অতি সাবধানী মন্তব্য করে বলেন, রাজ্যপালের মন্তব্যের জন্য তিনি রাজ্যপালকে দোষ দিতে চান না। কারণ, সাংবিধানিক পদে থেকে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার যা বলছে, রাজ্যপাল তাই করতে বাধ্য হচ্ছেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply