sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নিতে হবে: মার্কিন সিনেটর




আমেরিকার একজন সিনিয়র রিপাবলিকান সিনেটর ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার কেড়ে নেয়ার জন্য দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।সাউথ ক্যারোলিনা অঙ্গরাজ্য থেকে নির্বাচিত সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম সিবিএসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এ আহ্বান জানান। তিনি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইরান নীতির প্রশংসা করে বলেন, “আমি প্রেসিডেন্ট বাইডেনের জায়গায় থাকলে ইরান তার আচরণ পরিবর্তন না করা পর্যন্ত দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখতাম এবং একটি পুরনো সমঝোতায় ফিরে যেতাম না।” এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পদস্থ মার্কিন কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেন ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার থাকা উচিত নয় বলে যে মন্তব্য করেছেন তা দিয়ে তিনি মূলত পরমাণু সমঝোতায় প্রদত্ত মাত্রার চেয়ে বেশি মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অধিকার থাকা উচিত নয় বুঝিয়েছেন। ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার সারি সারি যন্ত্র সেন্ট্রিফিউজ (ইরানের একটি পরমাণু স্থাপনার ফাইল ছবি) ২০১৫ সালে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা অনুযায়ী ইরান সর্বোচ্চ ৩.৬৩ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে পারবে। পরমাণু অস্ত্র বানানোর জন্য শতকরা ৯০ মাত্রার চেয়ে বেশি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করতে হয়। আমেরিকা ২০‌১৮ সালের মে মাসে পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পরও ২০১৯ সালের মে মাস পর্যন্ত ইরান ৩.৬৩ মাত্রার বিধিনিষেধ মেনে চলেছে। কিন্তু এরপর আমেরিকা ও ইউরোপীয়দের পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের প্রতিবাদে ইরান ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা বাড়াতে শুরু করে এবং বর্তমানে ২০ মাত্রায় এই কাজ সম্পন্ন করছে। ইরান শুরু থেকে বলে এসেছে, পরমাণু অস্ত্র তৈরির জন্য নয় বরং বেসামরিক কাজে পরমাণু শক্তি ব্যবহার করার লক্ষ্যে দেশটি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করছে। তেহরান আরো বলেছে, আমেরিকা ও ইউরোপীয় দেশগুলো পরমাণু সমঝোতায় দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে শুরু করলে ইরানও ৩.৬৩ মাত্রার বিধিনিষেধে ফিরে যাবে; তার আগে নয়।#






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply