sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » সুলতান সুলেমানের হুররামের পরিচয়




সুলতান সুলেমানের হুররামের পরিচয়

‘সুলতান সুলেমান’ সিরিয়ালের জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়েছে পুরো বিশ্বে। বাংলাদেশের দর্শকদের অনেকেরই পছন্দের তালিকায় রয়েছে এই তুর্কি সিরিয়ালটি। সিরিয়ালের অভিনীত তারকাদের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় ফেলে গিয়েছিল বয়ফ্রেন্ড, তিনিই আজকের 'হুররাম সুলতান' সাবলীল অভিনয় কেড়েছে কোটি মানুষের মন। আর এই সিরিয়ালের মাধ্যমে বাংলাদেশসহ পুরো বিশ্বে যিনি মানুষের হৃদয়ের মনি কোঠায় জায়গা করে নিয়েছেন তিনি হলেন ‘হুররাম সুলতান। তার আসল নাম মেরিয়েম সারাহ ইউজারলি। সৌন্দর্য, বুদ্ধিমত্তা আর ষড়যন্ত্র দিয়ে ক্ষমতার সর্বোচ্চটুকু নিজের করে নেওয়া এক রহস্যময়ী নারী হুররাম। তার জীবনের অনেক অজানা কথাই জানব আজ। মেরিয়েম তুর্কি বংশোদ্ভূত জার্মান অভিনেত্রী। ১৯৮৩ সালের ১২ আগস্ট জার্মানিতে জন্ম নেওয়া এই অভিনেত্রী বেড়ে উঠেছেন সেখানেই। অভিনয় আর মডেলিং করে পরিচিতি পেয়েছিলেন তিনি। ছোটখাট চরিত্র দিয়েই জার্মানিতে শুরু করেছিলেন তার অভিনয় ক্যারিয়ার। ২০১০ সালে দুটি জার্মান ধারাবাহিকে অভিনয় করেন এই অভিনেত্রী। সেই বছরই জার্মান চলচ্চিত্র জার্নি অব নো রিটার্ন এবং জেচ আবের বাইলেতে অভিনয়ের জন্যেও সুপরিচিতি পান তিনি। হুররাম চরিত্রের জন্য এক সৌন্দর্য আর রহস্যঘেরা মুখের অপেক্ষা করছিলেন সুলতান-সুলেমানের পরিচালক ও প্রযোজকরা, যিনি পর্দা ছাপিয়ে ঢুকে যাবেন দর্শকের মনে। আর তখনই তাদের নজরে পড়েন মেরিয়েম। আর হুররাম চরিত্র দিয়েই দর্শকদের মন জয় করে নেন তিনি। ২০১১ সাল থেকে এই ধারাবাহিকের শুটিং শুরু হয়। জার্মানি থেকে তুরস্কে গিয়ে মারিয়েম ওঠেন এক হোটেলে। এখানে থেকেই ২০১৩ সালের মে মাস পর্যন্ত তিনি শুটিং চালিয়ে যান। তারপর হুট করে কোনো ধরনের পূর্বঘোষণা না দিয়েই শুটিং বন্ধ করে দেন। চলে যান জার্মানিতে। নানা গুজবের মধ্যে তুরস্কের পত্রিকা ‘হুরিয়েত’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তুরস্কের প্লেবয় চান এতেশের প্রেমে পড়েছিলেন তিনি। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর তিনি তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান। বিবাহিত ও দুই সন্তানের জনক এতেশ উল্টো গর্ভপাত করাতে বলেন। এটা শুনে প্রচণ্ড আঘাত পান তিনি। সিদ্ধান্ত নেন, সব ছেড়েছুড়ে জার্মানি চলে যাবেন। একাই সন্তানকে পৃথিবীতে স্বাগত জানাবেন। বর্তমানে ৩৪ বছর বয়সী এ অভিনেত্রী ফুটফুটে এক মেয়ের মা। নিজ অভিনয় জীবনের জনপ্রিয়তার সুবাদে, মেরিয়েম বহু বিজ্ঞাপন, চলচ্চিত্র ও খ্যাতনামা ব্র্যান্ডের অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন। ২০১২ সালে তিনি জিকিউ তুরস্ক ম্যাগাজিন কর্তৃক ওম্যান অব দ্য ইয়ার নির্বাচিত হন। এখন পর্যন্ত ৩০টিরও বেশি পুরস্কার অর্জন করেছেন হুররাম খ্যাত এই অভিনেত্রী।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply