sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » মিয়ানমারে বিক্ষোভ দমাতে পুলিশের গুলি, নিহত সাত




মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে টানা তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলা প্রতিবাদ দমাতে রোববার বিক্ষোভকারীদের উপর গুলি ছুড়েছে পুলিশ। মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে টানা তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলা প্রতিবাদ দমাতে বিক্ষোভকারীদের উপর গুলি ছুড়েছে পুলিশ। দেশটির একজন চিকিৎসক ও একজন রাজনীতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, আজ রোববার পুলিশের গুলিতে অন্তত সাত প্রতিবাদকারী নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী দেশটির নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে নেয়। ক্ষমতাসীন দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির নেত্রী অং সান সু চি ও অন্য শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তার করে সামরিক বাহিনী। এর পর থেকেই দেশটিতে বিক্ষোভ চলছে। এদিন ইয়াঙ্গনের বিভিন্ন অংশে স্টান গ্রেনেড ও কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে ব্যর্থ হয়ে পুলিশ গুলি ছোড়ে। বুকে গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে নেওয়ার পর তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে বলে পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন। মিজিমা গণমাধ্যমের চ্যানেলও এই মৃত্যুর কথা জানিয়েছে। শহরটিতে শিক্ষকদের একটি প্রতিবাদ স্টান গ্রেনেড ব্যবহার করে ছত্রভঙ্গ করে দেয় পুলিশ। এ সময় এখানে এক নারী মারা যান। তবে তাঁর মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি বলে ওই নারীর কন্যা ও তার সহকর্মীরা জানিয়েছেন। তবে প্রতিবেদনে বলা হয় ওই নারী হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন। দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর দাউইয়েও পুলিশ গুলি করেছে। এখানে তিন জন নিহত ও বেশ কয়েকজনকে আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় রাজনীতিক কিয়াও মিন হটিক রয়টার্সকে জানিয়েছেন। সংবাদমাধ্যম দ্য মিয়ানমার নাও এক প্রতিবেদনে দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালয়েও দুজন নিহত হয়েছেন বলে জানানো হয়েছে। এখানেও সকাল থেকেই বিক্ষোভকারীদের উপর চড়াও হয় পুলিশ। মধ্যাঞ্চলীয় শহর বাগোতে পুলিশের দমনাভিযানের মধ্যে অন্তত দুজন নিহত হয়েছেন বলে একটি দাতব্য সংস্থা জানিয়েছে। উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় শহর লাশিও এবং দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মায়িকেও বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ‘মিয়ানমার যুদ্ধক্ষেত্রের মতো হয়ে গেছে,’ টুইটারে বলেছেন বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশটির প্রথম ক্যাথলিক কার্ডিনাল চার্লস মাউং বো। এসব বিষয়ে মন্তব্য নেওয়ার জন্য পুলিশ ও ক্ষমতাসীন সামরিক কাউন্সিলের মুখপাত্রকে ফোন করা হলেও কেউ সাড়া দেয়নি বলে রয়টার্স জানিয়েছে। এদিকে গত সপ্তাহে দেশটির সামরিক বাহিনী প্রধান জেনারেল মিন অং হ্লাইং বলেছেন, প্রতিবাদ মোকাবিলায় কর্তৃপক্ষ ন্যূনতম শক্তি ব্যবহার করছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply