sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » জয়-হৃদয়ের ব্যাটে টাইগারদের সিরিজ জয়




আয়ারল্যান্ড উলভসকে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ জিতে নিল বাংলাদেশ। আজ শুক্রবার পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে আইরিশদের দেয়া ১৮৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে জয় ও হৃদয়ের অনবদ্য ফিফটিতে শুরুর চাপ সামলে বড় জয়ের পাশাপাশি ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ নিজেদের করে নিল বাংলাদেশ ইমার্জিং দল। এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের পক্ষে উদ্বোধন করতে নামেন তানজিদ হাসান তামিম ও মাহমুদুল হাসান জয়। বয়সভিত্তিক দলে দুর্দান্ত পারফর্ম করা তামিম ভালো করতে পারেননি এদিনও। ১৩ বলে মাত্র ২ রান করেন পিটার চেজের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরের পথ ধরেন জুনিয়র তামিম। একই ওভারের শেষ বলে ইয়াসির আলি চৌধুরীকেও শিকার করেন চেজ। তিনিও ফেরেন ৫ বলে মাত্র ২ রান করে। ফলে ১০ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে শুরুতেই চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ ইমার্জিং দল। সেখান থেকে দলকে বের করে আনেন মাহমুদুল হাসান জয় ও তৌহিদ হৃদয়। দেখেশুনে খেলে আদায় করে নিয়েছেন সিরিজে নিজের দ্বিতীয় ফিফটি। সঙ্গী তৌহিদ হৃদয়ও পেয়েছেন প্রথম ফিফটির দেখা। এই দুজনের অপরাজিত ফিফটিতে ২২ বল হাতে রেখেই সহজ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। এমন জয়ের প্রেক্ষাপটে ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়ের ব্যাট থেকে এসেছে অপরাজিত ৮০ রান। ১৩৫ বলে খেলা তাঁর এই ইনিংসে ছিল ৮টি চারের মার। এ প্রান্তে জয় একটু ধীরালয়ে খেললেও ওপরপ্রান্তে তৌহিদ হৃদয় ছিলেন বেশ সাবলীল। ৯৭ বলে খেলেন ৮৮ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। যে ইনিংসে ছিল ৯টি দৃষ্টিনন্দন চারের মার। এই দুজনের অনবদ্য ১৭২ রানের জুটিতে বড় জয় পায় বাংলাদেশ। এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নামা সফরকারীদের শুরু থেকেই চাপে রাখেন স্বাগতিক বোলাররা। লীয় ১৪ রানে স্টিফেন ডোহেনিকে (১১) ফিরিয়ে আইরিশদের প্রথম উইকেট শিকার করেন মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ। এরপর টানা দুই ওভারে ৩টি উইকেট তুলে নিয়ে আইরিশ টপ অর্ডার ধসিয়ে দেন সুমন খান। ১১তম ওভারে দলীয় ৪০ রানের মাথায় ২৬ বলে ১৬ রান করা জেরেমি ললরকে ফেরান সুমন। একই ওভারে হ্যারি ট্যাকটরকেও সাজঘরের পথ দেখান সুমন। রানের খাতা খোলার আগেই আউট হন দলীয় অধিনায়ক। জেরেমি ও হ্যারি দুইজনই আকবরের গ্লাভসবন্দী হন। নিজের পরের ওভারে এসেই কার্টিস ক্যাম্ফারকে (৫) নিজের তৃতীয় শিকার বানান সুমন। ফলে ৫৪ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে আয়ারল্যান্ড উলভস। এই বিপদ সামাল দিতে চেষ্টা করেন মার্ক অ্যাডাইর ও লরকান টাকার। দুজনে প্রতিরোধ গড়ে দলের স্কোরকে শতকের ঘরেও নিয়ে যান। তবে পরপর দুই ওভারে স্পিন জাদুকর রাকিবুলের জোড়া হানায় ভেঙে গুড়িয়ে যায় আইরিশ প্রতিরোধ। যাতে ১০১ রানেই ষষ্ঠ উইকেট হারায় সফরকারীরা। ৩৪ বলে ২৪ করা লরকান টাকার আকবর আলীর বিশ্বস্ত গ্লাভসে ধরা পড়লেও দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪০ রান করা (৪৯ বলে) অ্যাডাইরকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন রাকিবুল। পরে সাইফের জোড়া আঘাত ও মুকিদুলের আরও একটি ব্রেক থ্রু-তে ১৭৯ রানেই নবম উইকেট হারিয়ে ফেলা আয়ারল্যান্ড শেষ পর্যন্ত গুটিয়ে যায় ১৮২ রানেই। অ্যাডাইর ও টাকার বাদে আইরিশদের পক্ষে প্রিটোরিয়াস ৩৫ ও গ্রাহাম হুমে ২৯ রান করেন। সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট দখল করেন ৩১ রান দেয়া সুমন খান। এছাড়া বাকি ছয়টি উইকেট সমানভাবে ভাগ করে নেন রাকিবুল, মুকিদুল ও সাইফ হাসান।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply