sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » সারেগামায় অর্কদীপ সেরা হওয়ায় নেটিজেনদের ক্ষোভ




সারেগামায় অর্কদীপ সেরা হওয়ায় নেটিজেনদের ক্ষোভ

ভারতীয় বাংলা চ্যানেলের গানের রিয়্যালিটি শো ‘সারেগামাপা’-র জনপ্রিয়তার মাত্রা অন্যরকম। রোববার (১৮ এপ্রিল) গ্র্যান্ড ফিনালে প্রতিযোগীরা ও বিচারকরা ছাড়াও মঞ্চ মাতিয়ে দিয়েছিলেন অতিথি বিচারকরা। বাংলা গানের সেলিব্রেশনে মেতে উঠেছিল সারেগামাপা-র মঞ্চ। লড়াইটা ছিল হাড্ডাহাড্ডি। ফাইনালে একদিকে যেমন ইমনের টিম থেকে অর্কদীপ মিশ্র ও জ্যোতি, অন্যদিকে রাঘব চট্টোপাধ্যায়ের টিম থেকে পাল্টা জায়গা করে নিয়েছিলেন নীহারিকা ও অনুষ্কা পাত্র। মনোময় ভট্টাচার্যের টিম থেকে ছিলেন রক্তিম ও বিদীপ্তা। সেই পর্যন্ত সবই ঠিক ছিল। এরপর ঘোষণা হলো বিজয়ীদের নাম। এদিন শেষ হাসি হেসে সেরার শিরোপা জিতে নিলেন ইমন চক্রবর্তীর টিমের অর্কদীপ মিশ্র। আর তারপর থেকেই চটেছেন নেটিজেনরা। ফেসবুকে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তারা, এমনকি ফলাফল ও বিচারকার্য নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। তাদের দাবি, পক্ষপাত করা হয়েছে। উপযুক্ত প্রতিযোগীর মাথায় ওঠেনি শিরোপা। অর্কদীপ কেন প্রথম? বাকি প্রতিযোগী নীহারিকা, অনুষ্কা, বিদীপ্তাদের মধ্যে কেউ কেন পেল না সারেগামা চ্যাম্পিয়ন ট্রফি? এসব প্রশ্ন ঘুরছে সামাজিক মাধ্যম জুড়ে। প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় স্থানে নীহারিকা, বিদীপ্তা তৃতীয় স্থানে, অনুষ্কা জিতে নেন ‘কালিকা প্রসাদ ভট্টাচার্য স্মৃতি পুরস্কার’ এবং ফেসবুক দর্শকদের বিচারে ‘ভিউয়ারস চয়েস অ্যাওয়ার্ড’। মনোময় ভট্টাচার্যের টিম পেল ‘টিম অফ দিজ সিজন অ্যাওয়ার্ড’। অর্কদীপ জিতলেন পাঁচ লাখ টাকা। তবুও আনন্দ নেই তার মনে, কেন জানেন? সোশ্যাল মিডিয়ায় উপচে পড়ছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। নিজে থেকেই সোমবার লাইভে এসে অর্কদীপ বলেন- তিনি ভাল, মন্দ সব প্রতিক্রিয়াই মাথা পেতে নিয়েছেন। তিনিও মানেন সব প্রতিযোগীর যোগ্যতা ছিল, তিনি নিজেও শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বিশ্বাস করতে পারেননি যে তিনিই শীর্ষস্থানে, সকলকে পাশে থাকার আবেদন করেন শিল্পী। দর্শকদের একাংশের দাবি, অর্কদীপ নয়, এ ট্রফির দাবিদার নীহারিকা কিংবা অনুষ্কা। অর্কদীপ বিজয়ী হলে ইমন নিজের ফেসবুকে তাকে অভিনন্দন জানিয়ে একটি পোস্ট করেন। আর সেখানেই ক্ষোভ উপচে পড়ে নেটিজেনদের। এমনকি, ইমন টাকা খাইয়ে তাকে ট্রফি পাইয়ে দিয়েছে- এই অভিযোগও করা হয়। এরপরই ধৈর্যের বাধ ভাঙে ইমনের। ফেসবুক লাইভে এসে রীতিমতো জবাব দিয়েছেন নেটিজেনদের। তিনি বলেন, একটি ছেলে প্রথম হলো, তা নিয়ে এত সমালোচনা কেন? অর্কদীপের বদলে অন্য কেউ বিজয়ী হলেও এই পরিস্থিতি হতো। বিচারকদের দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় ইমন বলেন, ওখানে যারা বিচারকের আসনে ছিলেন, তারা প্রত্যেকে পারদর্শী, গান শিখে আজকের অবস্থানে পৌঁছেছেন। শঙ্কর মহাদেবেন, মিকা সিং, শ্রীকান্ত আচার্য, জয় সরকারকে নিয়ে আপনারা কী কমেন্ট করছেন? নিজেদের কোথায় নামাচ্ছেন? ইমন আরও বলেন, আমি ওকে অনেক দিন ধরেই চিনি, আমরা একই গুরুর শিষ্য। সেটা আলাদা কথা। তবে ওর ফাইটটা দেখুন। ওদের সবার লড়াইটা দেখুন। কেন আপনাদের মনে হয়েছে অর্কদীপের জেতাটা ভুল সিদ্ধান্ত? ইমনের মতে, সারেগামাপা–২০২০-এর গ্র্যান্ড ফিনালেতে জায়গা করে নেওয়া চয় প্রতিযোগীই বিজয়ী হওয়ার যোগ্য। কেবল বিচারে উনিশ-বিশের ফারাকে বিজয়ী নির্বাচিত হয়েছেন অর্কদীপ মিশ্র। বিচারকদের পক্ষে সম্ভবপর হলে সবাইকেই প্রথম ঘোষণা করা হতো। তিনি বলেন, আপনারা বলছেন আমি টাকা খাইয়েছি? আমার এত পয়সা নেই, আমি নিজের জন্য কোনো দিন টাকা খাওয়াইনি। টাকা খাওয়ানোর হলে আমি সৌম্যদীপ্তাকে রাখতাম, জ্যোতিকে রাখতাম, আমার টিমের সবাইকে রাখতাম। কেন এই ধরনের নোংরা কমেন্ট করছেন? কারও গান শুনতে ভালো না লাগলে শুনবেন না। কিন্তু কাউকে এভাবে আক্রমণ করবেন না। এই শিল্পী বলেন, নতুন যে ছেলেমেয়েগুলো গান করার চেষ্টা করছে, তাদের পাশে থাকুন। শিল্পীদের পাশে দাঁড়ান, একটু ভদ্রতা দেখান, তবেই সমাজটা আরও সুন্দর হবে। সূত্র: মহানগর ২৪ ঘণ্টা






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply