sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » জার্মানিতে একদিনে ১০ লাখ মানুষের টিকা গ্রহণ




জার্মানিতে একদিনে ১০ লাখ মানুষের টিকা গ্রহণ

জার্মানিতে করোনার টিকাদান কর্মসূচিতে গতি ফিরেছে। শুধু বুধবারই টিকা নিয়েছেন রেকর্ড ১০ লাখের বেশি মানুষ। দেশটির সাধারণ নাগরিকদের মধ্যে টিকা গ্রহণে আগ্রহ বাড়ায় স্বস্তিতে প্রশাসন। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যখন বিপর্যস্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। তখন জার্মানিতে টিকাদান কর্মসূচির পালে হাওয়া লেগেছে। দেশটিতে একদিনে ১০ লাখের বেশি মানুষকে দেয়া হচ্ছে ভ্যাকসিন। জার্মানির রবার্ট কক ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, প্রথম ডোজ টিকা গ্রহীতার সংখ্যা এখন দুই কোটি ৫৫ লাখ। দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন ৭১ লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষ। অর্থাৎ প্রায় সাড়ে আট কোটি জনসংখ্যার দেশটিতে টিকা নিয়েছেন প্রায় ৮ দশমিক ৬ শতাংশেরও বেশি। টিকা গ্রহণকারী এক জার্মান নাগরিক বলেন, আমার মনে হয়, করোনা টিকার ওপর আস্থা রাখা যায়। তাই টিকা নেয়াটা সত্যিই খুব জরুরি, সবাই নিচ্ছেও। আসলে জার্মানি উন্নত দেশ, তাই সংকট নেই। কিন্তু গরিব দেশগুলোতে টিকার বড্ড বেশি প্রয়োজন। তাই জার্মানিসহ উন্নত দেশগুলো গরিব দেশগুলোকে সাহায্য করুক এটা আমি চাই। এসবের মধ্যেও প্রায় প্রতিদিনই দেশটির কোথাও না কোথাও সংক্রমিত হচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। প্রাণ হারাচ্ছেন গড়ে ২০০ থেকে ২৫০। তবুও মের্কেল সরকারের টিকা নীতিতেই আস্থা সাধারণ মানুষের। এমন অবস্থায় অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা গ্রহণ বা বিতরণে কোনো নিয়ন্ত্রণ না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। আরেক নাগরিক বলেন, দেখুন দেশে যাদেরকেই টিকা দেয়া হচ্ছে তারা সবাই পাচ্ছেন অগ্রাধিকার ভিত্তিতে। টিকা নেয়ার ক্ষেত্রে এই নিয়মটা জরুরি ছিল। তবে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে টিকাটি নিয়ে নানা জনের নানা মত সৃষ্টি হওয়ায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সিদ্ধান্তটা ঠিকই আছে। কেউ যদি টিকাটিকে নিরাপদ মনে করে তাহলে নিতে বাধা কোথায় বলুন? দুই ডোজ টিকা নেয়া নাগরিকদের জন্য চলমান লকডাউনের বিধিনিষেধ আরও শিথিলের বিষয়ে ক্ষমতাসীন সরকার ও বিরোধীদলের মধ্যে আলোচনা অব্যাহত রয়েছে পার্লামেন্টে। জার্মানিতে টিকা প্রদান কার্যক্রমের শুরু দিকে টিকা গ্রহণের ব্যাপারে দেশটির নাগরিকদের মধ্যে অনাগ্রহ দেখা গিয়েছিল। কিন্তু সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে এখন সবাই টিকা গ্রহণের ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply