sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » ভারতকে হারিয়ে টেস্টে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন নিউজিল্যান্ড




আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম শিরোপা জয় করলো নিউজিল্যান্ড। দুই বছরের পথচলায় সেরা দুইয়ে জায়গা করে নেওয়ার তীব্র লড়াই, অনেক চড়াই-উৎরাই, অনিশ্চয়তা-উত্তেজনার নানা মোড় পেরিয়ে অবশেষে ধরা দিল বহু কাঙ্ক্ষিত আইসিসি শিরোপা। ফাইনালে ভারতকে ৮ উইকেটে হারিয়ে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়লো নিউজিল্যান্ড। দুই দিন বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার পরও কিউইরা লিখল দারুণ জয়ের কাব্য। রস টেইলর আর কেন উইলিয়ামসনের দৃঢ়তায় টেস্ট চ্যাম্পিয়নের ট্রফি এখন নিউজিল্যাণ্ডের। সাউথ্যাম্পটনে বুধবার টেস্টের শেষ দিনে কিউই পেসারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে গুটিয়ে যায় ১৭০ রানে। নিউজিল্যান্ডের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৩৮। রান তাড়ায় দুই ওপেনারের দ্রুত বিদায়ে আভাস জাগে নাটকীয়তার। তবে এবার দলকে আর হৃদয়ভাঙা হারের স্বাক্ষী হতে দেননি কেন উইলিয়ামসন ও রস টেইলর। দলের সেরা দুই ব্যাটসম্যানের দারুণ জুটিতেই ধরা দেয় জয়। দ্বিতীয় ইনিংসে কিউই পেসারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি বিরাট কোহলিরা। যার ফলে মাত্র ১৭০ রানেই অলআউট হয়ে যায় ভারত। নিউজিল্যান্ডের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় মাত্র ১৩৯ রানের। হাতে পেয়েছিল তারা ৫৩ ওভার। শেষ ইনিংসের রান তাড়ায়ও অগ্রণী উইলিয়ামসন। ৮৯ বল খেলে ৫২ রানে অপরাজিত থাকেন কেন উইলিয়ামসন। তার সঙ্গে ১০০ বল খেলে ৪৭ রান করে অপরাজিত থাকেন রস টেইলর। ভারতের হয়ে ২টি উইকেটেই নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। প্রথম ইনিংসে ২১৭ রান করেছিল ভারত। আজিঙ্কা রাহানে করেন সর্বোচ্চ ৪৯ রান। বিরাট কোহলি ৪৪, রোহিত শর্মা ৩৪ এবং ২৮ রান করেন শুভমান গিল। কাইল জেমিসন একাই নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। ট্রেন্ট বোল্ট এবং নেইল ওয়াগনার নেন ২টি করে উইকেট। ১টি নেন টিম সাউদি। ব্যাট করতে নেমে অবশ্য নিউজিল্যান্ডও খুব বেশি দূর যেতে পারেনি। তারা অলআউট হয়ে যায় ২৪৯ রানে। ৫৪ রান করেন ডেভন কনওয়ে। কেন উইলিয়ামসন করেন ৪৯ রান। আর টম ল্যাথাম ৩০ এবং টিম সাউদিও করেন ৩০ রান। তাতে প্রথম ইনিংসে ৩২ রানের লিড পায় কিউইরা। এই লিডই তাদেরকে জয়ের পথে এগিয়ে নেয়। ৩২ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ভারত। পঞ্চম দিন শেষে ভারতের সংগ্রহ ছিল ২ উইকেটে ৬৪ রান। এর মধ্যে রোহিত শর্মার ব্যাট থেকে আসে ৩০ রান। ৬ষ্ঠ দিন ব্যাট করতে নামে চেতেশ্বর পুজারা এবং বিরাট কোহলি। কিন্তু দিনের শুরুতেই তারা উইকেট বিসর্জন দিয়ে আসেন। কোহলি করেন ১৩ রান এবং পুজারা আউট হন ১৫ রানে। রিশাভ পান্ত কিছুটা প্রতিরোধের চেষ্টা করেন। ৮৮ বল খেলে ৪১ রান করেন তিনি। রবিন্দ্র জাদেজা করেন ১৬ রান। রবিচন্দ্রন অশ্বিন করেন ৭ রান এবং মোহাম্মদ শামি করেন ১৩ রান। ইশান্ত শর্মা ১ রানে অপরাজিত থাকেন। অভিজ্ঞ টিম সাউদি নিয়েছেন ৪ উইকেট। ট্রেন্ট বোল্ট নেন ৩ উইকেট। আগের ইনিংসে ৫ উইকেট নেয়া কাইল জেমিসন নিয়েছেন ২ উইকেট। বাকি উইকেটটি নিয়েছেন নেইল ওয়েগনার। ম্যাচের বাকি তখন ৫৩ ওভার, নিউজিল্যান্ডের লক্ষ্য ১৩৯ রান। এই সুযোগ তারা হাতছাড়া করেনি। উপলক্ষ্য রাঙিয়ে তোলে তারা নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে স্মরণীয় সাফল্যে। প্রথমবারের মত বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে ৮ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলো নিউজিল্যান্ড। সংক্ষিপ্ত স্কোর : ভারত ১ম ইনিংস: ২১৭ নিউ জিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২৪৯ ভারত ২য় ইনিংস: (আগের দিন ৬৪/২) ৭৩ ওভারে ১৭০ (পুজারা ১৫, কোহলি ১৩, রাহানে ১৫, পান্ত ৪১, জাদেজা ১৬, অশ্বিন ৭, শামি ১৩, ইশান্ত ১*, বুমরাহ ০; সাউদি ১৯-৪-৪৮-২, বোল্ট ১৫-২-৩৯-৩, জেমিসন ২৪-২-৩০-২, ওয়্যাগনার ১৫-২-৪৪-১)। নিউজিল্যান্ড ১ম ইনিংস: (লক্ষ্য ১৩৮) ৪৫.৫ ওভারে ১৪০/২ (ল্যাথাম ৯, কনওয়ে ১৯, উইলিয়ামসন ৫২*, টেইলর ৪৭*; ইশান্ত ৬.২-০-২১-০, শামি ১০.৫-৩-৩১-০, বুমরাহ ১০.৪-২-৩৫-০, অশ্বিন ১০-৫-১৭-২, জাদেজা ৮-১-২৫-০)। ম্যান অব দ্যা ফাইনাল: কাইল জেমিসন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply