sponsor

sponsor

Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি

খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার

যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই একা বসবাসের অনুমোদন পেলেন সৌদি নারীরা




প্রাপ্তবয়স্ক নারীকে একা বা স্বাধীনভাবে বসবাস করতে দেওয়ার অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব। এখন থেকে সৌদি আরবের প্রাপ্তবয়স্ক অবিবাহিত, তালাকপ্রাপ্ত বা বিধবা নারী কোনো পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া একাই স্বাধীনভাবে বসবাস করতে পারবেন। দেশটির সংবাদমাধ্যম মক্কার বরাত দিয়ে খবরটি জানিয়েছে গালফ নিউজ। সম্প্রতি দেশটির আইন ও বিচারিক কর্তৃপক্ষ নারীর অভিভাবকের অধীনে থাকার ১৬৯ নম্বর অনুচ্ছেদের ‘বি’ অনুচ্ছেদটি বাতিল করে দিয়েছে। আগের আইন অনুযায়ী, কোনো প্রাপ্তবয়স্ক, বিধবা বা তালাকপ্রাপ্ত নারীকে তাঁর পুরুষ অভিভাবকের কাছে হস্তান্তর করা হতো। সেই আইনটি বদলে নতুন করে দেওয়া সংশোধনী অনুযায়ী, অবিবাহিত বা বিধবা নারীরা এখন থেকে নিজেদের পছন্দমতো একা বসবাসের স্বাধীনতা পাবেন। সংশোধিত আইন বলছে, একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারী কোথায় থাকবেন—সেটা বেছে নেওয়ার অধিকার তাঁর আছে। যদি প্রাপ্তবয়স্ক নারী কোনো অপরাধ করেন, তাহলে তাঁর অভিভাবক অভিযোগ করতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই তথ্য-প্রমাণ থাকতে হবে। এ ছাড়া অপরাধ করা কারণে প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের যদি জেল হয়, সে ক্ষেত্রে সাজা ভোগ করার পরও তাঁকে অভিভাবকের হাতে হস্তান্তর করা হবে না। সাজা শেষে নারী পছন্দমতো একা বসবাসের সুযোগ পাবেন। গালফ নিউজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে দেশটির আইনজীবী নাইফ আল মানসি বলেন, ‘একা বসবাসের জন্য পরিবারগুলো এখন থেকে আর তাদের মেয়েদের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারবে না। আদালত এ ধরনের মামলা গ্রহণ করবে না। এখন থেকে যারা একা থাকতে পছন্দ করেন, তাঁরা একাই বসবাস করার স্বাধীনতা পাবেন।’ এর আগে সৌদি লেখক মরিয়ম আল ওতাইবি একা বসবাস করার স্বাধীনতা চেয়ে পরিবারের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে যান। দীর্ঘ তিন বছর আইনি লড়াইয়ের পর ২০২০ সালের জুলাইয়ে তিনি ওই মামলার রায়ে জয়ী হয়েছিলেন এবং একা থাকার ও ভ্রমণের অনুমতি পেয়েছিলেন। আল ওতাইবির মতো এখন থেকে সৌদি আরবের সব প্রাপ্তবয়স্ক নারী ভ্রমণ ও বসবাসের ক্ষেত্রে পূর্ণ স্বাধীনতা পাবেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply