sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » কোপা আয়োজনে সিবিএফকে দুই শর্ত




কোপা আয়োজনে সিবিএফকে দুই শর্ত

কোপা আয়োজনে ব্রাজিলিয়ান ফুটবল ফেডারেশনকে (সিবিএফ) দুটি শর্ত দিয়েছে দেশটির প্রশাসন। এ শর্তগুলো মানতে পারলেই কেবল ব্রাজিলে কোপা আয়োজন সম্ভব বলে জানিয়েছেন দেশটির চিফ অব স্টাফ লুইজ এডুয়ার্ডো রামোস। কনমেবলের অনুরোধে মাত্র দু সপ্তাহের ব্যবধানে কোপা আমেরিকার মতো আসর করতে রাজি হলেও এখনও সব চূড়ান্ত হয়নি বলে মন্তব্য তার। ২০১৯ সালে নিজেদের মাটিতে কোপা আয়োজন করেছিল সিবিএফ। রেফারিং আর আয়োজনের নানা সমস্যা নিয়ে সেবার কনমেবলকে ধুঁয়ে দিয়েছিলেন ফুটবলার এবং বিভিন্ন দেশের ফেডারেশনের কর্তা ব্যক্তিরা। কিন্তু সব আলোচনা-সমালোচনাকে ছাপিয়ে সেবার নিজেদের মাঠে শিরোপা উৎসব করেছিল ব্রাজিল। এরপর থেকেই সবার জানা, পরের আসর বসছে কলম্বিয়া-আর্জেন্টিনায়। যৌথভাবে স্বাগতিক হওয়া নিয়ে সমালোচনা থাকলেও নিজেদের প্রস্তুতি দিয়ে সবার মুখ বন্ধ করে দিয়েছিল দেশ দুটি। কিন্তু ঈর্ষা হলো কোভিডের। সঙ্গে যুক্ত হলো কলম্বিয়ানদের সরকার বিরোধী আন্দোলন। এক কোভিডে আসর পেছাল এক বছর, আর এবার দুয়ে মিলে কোপাটাকেই সরিয়ে নিল ভালদেরামার দেশ থেকে। আরও পড়ুন: এবার বিজেপি ছাড়তে মরিয়া তারা আলবেসিলেস্তারা তাও হাল ছাড়েনি বেশ কদিন। একা একাই করে ফেলতে চেয়েছিল নিজেদের মাটিতে। কিন্তু আবারো সেই কোভিডের হানা, থামিয়ে দিল তাদেরকে। ঘুরে ফিরে তাই আবারো ব্রাজিলের কাঁধেই সওয়ার হলো কনমেবল। আবারো ল্যাটিন ফুটবল বাঁচানোর দায়িত্ব সিবিএফের কর্তাদের হাতে। কিন্তু সেখানে বাঁধ সেধেছে দেশটির সরকার এবং কোভিড প্রটোকল টিম। তাদের পরিষ্কার নির্দেশনা, এখনও কোপার মতো আয়োজন করার জন্য প্রস্তুত নয় ব্রাজিল। তবে কিছু শর্ত মানলে আয়োজনের অনুমতি মিলবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তারা। ব্রাজিলের চিফ অব স্টাফ লুইজ এডুয়ার্ডো রামোস বলেন, এখনই সব চূড়ান্ত বলে ধরে নেবেন না। আমরা একটা মহামারির মাঝে অবস্থান করছি। জুনের শেষ দিকে আবারো একটা ওয়েভ আসবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তাই যে কোন সিদ্ধান্ত হুট করে নেয়া সম্ভব না। তবে আমরা আসরটি আয়োজন করতে ইচ্ছুক নই এটা আবার ভেবে নেবেন না। আমরা সিবিএফকে কিছু শর্ত দিয়েছি। ১০ দলকে দুটি ভাগে ভাগ করে বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। ডেলিগেশনে ৬৫ জনের বেশি যেন না থাকে। তাদের সবাইকে অবশ্যই টিকার আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় এ আসরের অনুমতি আমরা দেবোনা। কোপা আয়োজনে এখন পর্যন্ত তিনটি স্টেডিয়ামকে বায়ো-বাবলের আওতায় নিতে আগ্রহ দেখিয়ে সিবিএফ। বিষয়টিতে কোনো আপত্তি তুলেনি স্থানীয় প্রশাসন। তবে, কোনভাবেই ব্রাজিলের ঘরোয়া লিগকে ক্ষতিগ্রস্ত করা যাবে না মর্মে শর্ত দিয়েছে তারাও। লুইজ এডুয়ার্ডো রামোস আরও বলেন, আমরা কঠিন একটা সময় পার করছি। এখানে, সবাইকে সবার পাশে দাঁড়াতে হবে। সিবিএফ যে মাঠগুলো চেয়েছে, সেগুলো নিয়ে আমাদের আপত্তি নেই। তবে ব্রাজিলের ঘরোয়া লিগের ম্যাচগুলো পুরো দেশজুড়ে অনুষ্ঠিত হয়। সেগুলোকে কোনভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত করা যাবে না। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৪ লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে ব্রাজিলে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply