sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » সিরিজ জিততে বাংলাদেশের চাই ১৬৭




নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেও ফিল্ডিংয়ের জন্য ধুকতে হয়েছে বাংলাদেশকে। দিতে হয়েছে ক্যাচ মিসের মাশুল। বাংলাদেশের বাজে ফিল্ডিংয়ের সুযোগ ভালোভাবেই নিয়েছেন ওয়েসলি মাধেভেরে। খেলেছেন ৭৩ রানের দারুণ ইনিংস। টপ অর্ডার এই ব্যাটসম্যানে ভর করে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে ১৬৭ রানের লক্ষ্য দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। আজ শুক্রবার সিরিজে টিকে থাকার মিশনে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেটে ১৬৬ রান সংগ্রহ করেছে জিম্বাবুয়ে। প্রথম ম্যাচে জিতে এরই মধ্যে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। হারারের স্পোর্টস ক্লাবে দ্বিতীয় ম্যাচেও টসের ভাগ্য জিতেছে জিম্বাবুয়ে। বরাবরের মতো ব্যাটিং নিয়েছে তারা। কিন্তু ব্যাটিংয়ে নেমেই শুরুতেই হোঁচট খাঁয়। বাংলাদেশি বোলার মেহেদী হাসান বোল্ড করে ফিরিয়ে দিয়েছেন স্বাগতিক ওপেনার টাডিওয়ানাশে মারুমানিকে (৩)। মারুমানি ফেরার পর দ্বিতীয় উইকেটে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে জিম্বাবুয়ে। কিন্তু সেটা বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেননি সাকিব আল হাসান। নিজের স্পেলে এসেই তুলে নিলেন জিম্বাবুয়ের শক্ত উইকেট চাকাভাকে। সাকিবের করা অফ স্টাম্পের বেশ বাইরের বল টেনে খেলার চেষ্টা করেন চাকাভা। কিন্তু টাইমিং ঠিক হয়নি। বল চলে যায় মিড অফে। সেখানে থাকা শরিফুল হাতের মুঠোয় ক্যাচ জমান। ৯ বলে একটি করে ছক্কা ও চারে ১৪ রান করেন চাকাভা। এরপর প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ওয়েসলি মাধেভেরে ও ডিওন মায়ার্স। তৃতীয় উইকেটে তাদের জুটির পঞ্চাশ এসেছে ৪২ বলে। এ ছাড়া ৪৫ বলে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন মাধাভেরে। থিতু হয়ে যাওয়া এই জুটি শেষ পর্যন্ত ভাঙেন শরিফুল। তবে মাধেভেরেকে ফেরাতে পারেননি। আউট করেছেন মায়ার্সকে। শরিফুলের করা অফ স্টাম্পের বাইরের শর্ট বলে উপরে উঠিয়ে দেন মায়ার্স। ডিপ পয়েন্টের ফিল্ডার মেহেদি হাসান ক্যাচ নিতে ভুল করেননি। ২১ বলে ২৬ রান করেন মায়ার্স। ভাঙে ৫৭ রানের জুটি। মায়ার্স ফিরলে কিছুক্ষণ মাধেভেরেকে সঙ্গ দেওয়ার চেষ্টা করেন সিকান্দার রাজা। সেই রাজা কাটা পড়েন রান আউটে। সরাসরি থ্রোয়ে সিকান্দার রাজাকে রান আউট করেন সৌম্য সরকার। সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মাঝে থিতু হয়ে যাওয়া মাধেভেরের উইকেট শেষ পর্যন্ত পান শরিফুলই। ১৮তম ওভারে শরিফুলের বল মোকাবিলা করতে গিয়ে আফিফের হাতে ক্যাচ তুলে দেন মাধেভেরে। ফলে ৫৭ বলে ৭৩ রানে শেষ হয় মাধেভেরের প্রতিরোধ। মাধেভেরে ফিরলে শেষ পর্যন্ত ১৬৬ রানে থামে জিম্বাবুয়ের প্রতিরোধ। একমাত্র টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজের পর টি-টোয়েন্টিতেও উড়ন্ত জয়ে শুরু করেছে বাংলাদেশ। তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টির প্রথমটিতে জয় দিয়ে শুরু করা বাংলাদেশ আজ শুক্রবার সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মোহাম্মদ নাঈম ও সৌম্য সরকারের হাফসেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়েকে ৮ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। ওই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে লাল-সবুজের দল। কালকের ম্যাচটি ছিল বাংলাদেশের ১০০তম টি-টোয়েন্টি। ওয়ানডে ও টেস্টের পর টি-টোয়েন্টির ১০০তম ম্যাচেও জিতল বাংলাদেশ। একমাত্র টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজে জয়ের স্বস্তি নিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করেছে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টির প্রথম ম্যাচেও এলো জয়ের স্বস্তি। আজ সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে জিতলে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত হবে সফরকারীদের। অবশ্য জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে কখনও হারেনি বাংলাদেশ। আগের পাঁচ সিরিজের দুটিতে জিতেছে লাল-সবুজরা, অন্য তিনটি ড্র হয়েছে। সংক্ষিপ্ত স্কোর: জিম্বাবুয়ে : ২০ ওভারে ১৬৬/৬ (মাধেভেরে ৭৩, মারুমানি ৩, চাকাভা ১৪, মায়ার্স ২৬, রাজা ৪, বার্ল ৩৪, জঙ্গুয়ে ২; সাইফ ৪-০-৩৬-০, তাসকিন ৪-০-২৮-০, সাকিব ৪-০-৩২-১, শরিফুল ৪-০-৩৩-৩, সৌম্য ২-০-১৬-০, শামীম ১-০-৭-০, মেহেদী ১-০-১১-১)।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply