sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » এক অথবা দুই সপ্তাহের মধ্যেই নতুন মন্ত্রিসভা হচ্ছে: তালেবান




আগামী এক অথবা দুই সপ্তাহে নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হতে পারে বলে জানিয়েছে তালেবান। তবে এই মন্ত্রিসভায় নারীরা দায়িত্ব পালন করবেন কি না, সে ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে তালেবান জানিয়েছে। নতুন সরকার গঠন করা হলে আফগানিস্তানে চলমান অর্থনৈতিক সংকট সহজে মোকাবিলা করা যাবে বলে মনে করে তালেবান। তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে এসব কথা জানান। তিনি আইএসের অবস্থান লক্ষ্য করে যুক্তরাষ্ট্রের চালানো ড্রোন হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এটি আফগান অঞ্চলের ওপর হামলা। আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহার প্রায় শেষ পর্যায়ে। দেশটিতে অর্থনৈতিক সংকটও চলছে। এ অবস্থায় নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের প্রস্তুতির কথা জানাল তালেবান। বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ সেনা প্রত্যাহারের পর কূটনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখতে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা বিশ্বের দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তালেবান মুখপাত্র আশা করেন, শিগগিরই আফগানিস্তান থেকে তাদের সেনা প্রত্যাহারের কাজ শেষ হয়ে যাবে। তবে ঠিক কখন মন্ত্রিসভা গঠন করা হবে, তা জানায়নি তালেবান। দলটির মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ রয়টার্সকে বলেন, আগামী সপ্তাহে নতুন মন্ত্রিসভার ঘোষণা দেওয়া হতে পারে। রয়টার্সকে এ কথা জানানোর পরে এক ভয়েস মেসেজে জাবিউল্লাহ জানান, আগামী এক অথবা দুই সপ্তাহের মধ্যে নতুন মন্ত্রিসভার কথা জানানো হতে পারে। মন্ত্রিসভায় কোনো নারী থাকবেন কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে জাবিউল্লাহ বলেন, তালেবানের নেতৃত্ব পর্যায় থেকে নারীদের থাকার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তালেবান নেতারা এ ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নেবেন, তা তিনি জানেন না। বিজ্ঞাপন তালেবানরা গতকাল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আবার খোলার জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে আফগানরা ব্যাংক থেকে সপ্তাহে ২০০ ডলার বা ২০ হাজার আফগান মুদ্রা তুলতে পারবে, এমন নিয়ম বেঁধে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তালেবান মুখপাত্র জানান, জনস্বাস্থ্য, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও কেন্দ্রীয় ব্যাংক পরিচালনার জন্য কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে। তালেবানদের কাবুল দখলের দুই সপ্তাহ পরও আফগানিস্তানে এখনো ব্যাংক বন্ধ রয়েছে। দেশটিতে খাবারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সবকিছুর দাম বেড়ে গেছে। আফগানরা মানবিক বিপর্যয়ের মুখে পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছেন জাতিসংঘের কর্মকর্তারা। দেশটির বেশির ভাগ এলাকায় তীব্র খরা চলছে। আফগানিস্তান থেকে পশ্চিমা দেশগুলো দূতাবাস সরিয়ে নেওয়ায় কোটি কোটি ডলারের বৈদেশিক সহায়তা বন্ধ হয়ে গেছে। তবে নতুন সরকার গঠিত হলে অর্থনৈতিক সংকট সহজে মোকাবিলা করা যাবে বলে মনে করছেন তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রাবাজারে আফগানি মুদ্রামান কমে যাওয়া সাময়িক। হঠাৎ পরিস্থিতি বদলে যাওয়ার কারণে এমনটা ঘটেছে। আফগানিস্তানে নতুন তালেবান সরকার দায়িত্বপালন শুরু করলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply