sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » অবস্থা ভয়াবহ, কথা রাখেনি তালেবান: ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী




কাবুল বিমানবন্দরে যখন বোমা হামলা ঘটে তখন বাইরে অপেক্ষমাণ যাত্রীদের মধ্যে কয়েকজন ভারতীয় ছিল। শেষ পর্যন্ত মধ্যরাতের বেশকিছু পরে তারা জানা যায়, ১৬০ জন ভারতীয় যাদের মধ্যে ১৫ জন হিন্দু এবং ১৪৫ জন শিখ, কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে একটি গুরুদ্বারে আশ্রয় নেওয়ায় বেঁচে যান। অবস্থা ভয়াবহ, কথা রাখেনি তালেবান: ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এদিকে কাবুল বিমানবন্দরে হামলার ঘটনায় নতুন করে সন্ত্রস্ত হয়েছে দেশটি। আফগানিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনার জন্য সর্বদলীয় বৈঠক করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে শুরু হয় ওই বৈঠক। সেখানে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে বিভিন্ন দলের নেতাদের আমন্ত্রণ জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। এ সময় জয়শঙ্কর বলেন, তালেবান তাদের প্রতিশ্রুত কথা রাখেনি। তাই আফগানিস্তানের পরিস্থিতি ভয়ানক। জয়শঙ্কর বলেন, প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেছে তালেবান। দোহা বৈঠকে যে কথা তারা দিয়েছিল, তা রাখেনি। পরিস্থিতি ভয়ানক। বৃহস্পতিবার ভারতের নরেন্দ্র মোদির সরকারের ডাকা সর্বদল বৈঠকে এসব কথা বলেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। এদিকে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের বিমানবন্দরে ভয়াবহ আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা ১০৩ ছাড়িয়েছে। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানায়, নিহতদের মধ্যে ৯০ জনই বেসামরিক আফগান নাগরিক ও ১৩ জন মার্কিন সেনা রয়েছেন। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানায়, বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় কাবুল বিমানবন্দরে হওয়া ভয়াবহ ওই আত্মঘাতী বোমা হামলায় এখন পর্যন্ত ১৫০ জনেরও বেশি মানুষের আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতদের মধ্যে ১৮ জন মার্কিন সেনা ও চাকরিজীবী রয়েছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা। আরও পড়ুন: তালেবানকে পর্যবেক্ষণ করছে রাশিয়া এদিকে মার্কিন সামরিক বাহিনীর মেরিন কমান্ডার জেনারেল ফ্রাংক ম্যাকেঞ্জি সাংবাদিকদের কাছে জানান বৃহস্পতিবারের হামলার পর বিদ্যমান পরিস্থিতিতে আরও হামলার আশঙ্কা করছেন তারা। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানায়, বৃহস্পতিবার কাবুল বিমানবন্দরে অ্যাবেই গেটের কাছে পরপর দুটি বিস্ফোরণ ঘটে। যেখানে মার্কিন ও ব্রিটিশ বাহিনী বিমানবন্দরের দায়িত্বে ছিল। হামলার পর গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। এর কিছুক্ষণ পরেই দ্বিতীয় বিস্ফোরণ ঘটে ব্যারন হোটেলের পাশে। যেখানে ব্রিটিশ কর্মকর্তারা যুক্তরাজ্যে ভ্রমণপ্রত্যাশী আফগানদের প্রয়োজনীয় সহায়তা দিচ্ছিল। আফগান সাংবাদিক বিলাল সারওয়ারি এক টুইটে জানান, বিমানবন্দরের অ্যাবেই গেটের বাইরে কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের জন্য একটি পয়ঃনিষ্কাশন খালের পাশে নারী শিশুসহ অনেক আফগান অপেক্ষা করছিলেন। সেখানেই ভিড়ের মধ্যে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এক হামলাকারী নিজেকে উড়িয়ে দেয়। বিস্ফোরণের পর আরেক হামলাকারী গুলিবর্ষণ শুরু করে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply