Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্বপ্ন দেখে লাভ নেই : তথ্যমন্ত্রী




তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্বপ্ন দেখে লাভ নেই : তথ্যমন্ত্রী আজ শনিবার বিকেলে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ব্রজগোপাল টাউন হলে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাড়ে ১৩ বছরে বাংলাদেশকে বদলে দিয়েছেন। উন্নয়নের ছোঁয়া শুধু শহরে নয়, গ্রাম-গ্রামান্তরেও লেগেছে। গ্রামগুলোও এখন শহরে পরিণত হয়েছে। এখন কাউকে আর খালি পায়ে দেখা যায় না। গ্রামের মানুষও এখন আর বাসি পান্তাভাত খায় না। এটাই হচ্ছে শেখ হাসিনার বদলে দেওয়া বাংলাদেশ।’ আজ শনিবার বিকেলে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার ব্রজগোপাল টাউন হলে সাবেক সংসদ সদস্য ও অধ্যক্ষ মরহুম এম এম নজরুল ইসলামের ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন। এ সময় ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘গ্রামে বসে এখন সারা বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়। মোবাইলের মাধ্যমে ঘরে বসেই টাকা লেনদেন করতে পারে সাধারণ মানুষ। ঘরে বসেই স্কুল, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন করতে পরছে। এটাই হচ্ছে শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ।’ সম্প্রতি বিএনপির সিরিজ বৈঠকের কথা উল্লেখ করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের স্বপ্ন দেখে কোনো লাভ নেই। তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর কখনো হবে না। সংবিধান অনুযায়ী আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনেই হবে আগামী সংসদ নির্বাচন।’ তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন কোনো দলের অধীনে নয়। নির্বাচন কমিশন স্বাধীন। স্বাধীনভাবেই তারা নির্বাচন পরিচালনা করে থাকে।’ মন্ত্রী আরও বলেন, ‘বিএনপির নেতারা বলেছিল, পদ্মা সেতু হবে না। কিন্তু শেখ হাসিনার সরকার সেই পদ্মা সেতু বানিয়ে দেখিয়েছে। আমি সেই দিনের অপেক্ষায় আছি যেদিন বিএনপি নেতারা এই পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে যাতায়াত করবে।’ ড. হাছান মাহমুদ আরও বলেন, শেখ হাসিনা সরকার সমগ্র দেশের উন্নয়নে বিশ্বাস করে। যে কারণে দেশের প্রতিটি প্রান্তে উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। সমগ্র দেশের উন্নয়নের মধ্যেই জাতি ও রাষ্ট্রের উন্নয়ন হয়। আর তাই দেশের প্রতিটি প্রান্তে যেন উন্নয়ন ছোঁয়া সে লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। তিনি আরও বলেন, চরফ্যাশন উপজেলা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য দেখে আমি মুগ্ধ, এখানে সারা দেশ থেকে পর্যটকরা আসেন। দেশের অনান্য অঞ্চলের মতো চরফ্যাশনেও উন্নয়ন হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ হওয়ার কারণে সব কিছুই এখন হাতের নাগালে। এখন সুদূর কুকরিমুকরি থেকেও অনলাইনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিও আবেদন করা যায়, কৃষকরা ক্ষেতে বসেই কর্মকর্তাদেও সঙ্গে বলে সমাধান পাচ্ছেন। এ সময় আরও বক্তব্য দেন ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব। সভাপতিত্ব করেন চরফ্যাশন সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ কায়সার আহমেদ দুলাল। বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী, পুলিশ সুপার সরকার মো. কায়সার। তথ্যমন্ত্রী এর আগে সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের কবর জিয়ারত শেষে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিদর্শন করেন। দৃষ্টিনন্দন শেখ রাসেল শিশু ও বিনোদন পার্ক, জ্যাকব টাওয়ার ও ফ্যাশন স্কয়ার পরিদর্শন করেন। এ ছাড়া ভোলা ও চরফ্যাশন উপজেলার সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply