sponsor

sponsor


Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » তালেবানের হাত থেকে আফগানদের রক্ষার দাবি মার্কিন সেনাপ্রধানের




আফগান ইস্যুতে এবার মার্কিন সেনাদের পক্ষে সাফাই গাইলের দেশটির সেনাপ্রধান। জার্মানিতে মার্কিন সামরিক ঘাঁটি পরিদর্শনে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাপ্রধান মাইক মাইলির বলেন, তালেবানের হাত থেকে স্থানীয় আফগান ও বিদেশিদের রক্ষা করে বীরত্বের পরিচয় দিয়েছে মার্কিন সেনাবাহিনী। বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় কমপক্ষে ৯টি দেশের সেনাঘাঁটিতে মার্কিন সেনারা দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছে বলেও জানান তিনি। তালেবানের হাত থেকে আফগানদের রক্ষার দাবি মার্কিন সেনাপ্রধানের তালেবানের আফগানিস্তান নিয়ন্ত্রণের পর রাতের অন্ধকারে কাবুল বিমানবন্দর ছেড়ে যায় মার্কিন সেনাবাহিনী। দীর্ঘ ২০ বছর তালেবানের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর এভাবে নিজেদের গুটিয়ে নেওয়ার পর বিশ্বজুড়ে শুরু হয় তীব্র সমালোচনা। আফগানিস্তানের হাজার হাজার মানুষকে বিপদের মুখে ঠেলে দিয়ে নিজেদের রক্ষায় এভাবে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ায় মার্কিন সেনাদের ভূমিকা নিয়ে শুরু হয় নানা আলোচনা। তবে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের হার মানতে নারাজ ওয়াশিংটন। নিজেদের অবস্থান সঠিক ছিল উল্লেখ করে মার্কিন সেনাদের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এবার একই সুরে কথা বললেন মার্কিন সেনা প্রধান মাইক মাইলির। শনিবার জার্মানির মার্কিন সেনা ঘাঁটি পরিদর্শনে গিয়ে তিনি বলেন, সাধারণ আফগানদের সরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে সেনারা যে দায়িত্ব পালন করেছেন তা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। সভাপতি যৌথ বাহিনীর প্রধান মার্ক মাইলি বলেন, আমাদের সেনারা অসাধারণ কাজ করেছে। তারা ১ লাখ ২৪ হাজার মানুষকে নিরাপদে সরিয়ে এনেছে। তাদের বীরত্ব, শৃঙ্খলা সেই সঙ্গে যোগ্যতার প্রশংসা করতে ই হয়। সত্যিই এটি অত্যন্ত গর্বের কাজ। বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় মার্কিন সেনাদের এই অবদান পৃথিবীর ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে বলেও মনে করেন তিনি। এদিকে মার্কিন বাহিনীকে সহায়তা নাগরিকরা আফগান ছাড়তে মরিয়া। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রবের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আল থানি বলেন, তালেবানের সঙ্গে আলোচনা চলছে। কাবুল বিমানবন্দর চালু করতে সম্ভাব্য কারিগরি সহায়তার জন্য তারা তুরস্কের সঙ্গে কাজ করছেন। এদিকে তালেবান যখন আফগানিস্তানে নতুন সরকার গঠন করতে যাচ্ছে, তখন নতুন বাস্তবতার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিচ্ছে বিদেশি শক্তিগুলো। তালেবান প্রশাসনের সঙ্গে তাদের আচরণ কেমন হবে, তা নির্ধারণে তারা ব্যস্ত। আরও পড়ুন: হঠাৎ কাবুল সফরে পাকিস্তানের গোয়েন্দাপ্রধান পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান ফাইজ হামিদ বর্তমানে কাবুলে অবস্থান করছেন। চলতি সপ্তাহের শুরুতে এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, আফগান সামরিক বাহিনীকে তালেবানের স্বীকৃতি দিতে সহায়তা করতে পারেন পাকিস্তানের এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা। আফগানিস্তানে তিনি সেই আলোচনাই করছেন। এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকিন কাতার সফরে যাচ্ছেন রোববার (৫ সেপ্টেম্বর)। আফগানিস্তানে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে কাতার। তবে ব্লিংকিন কোনো তালেবান নেতার সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে মনে হচ্ছে না। শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ব্রিটেন বলছে, তারা আফগানিস্তানের মানবিক সহায়তা দিতে তালেবানের সঙ্গে কাজ করবে। তবে আফগান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না। বিবিসির আন্তর্জাতিক প্রতিনিধি লিয়েস ডৌসেট বলেন, তালেবান যখন আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চাচ্ছে, তখন তারাও নতুন শর্ত আরোপ করতে চাচ্ছেন। পশ্চিমারা যদি তালেবানের সঙ্গে কাজ করতে অনাগ্রহী হয়, তবে চীন, রাশিয়া ও পাকিস্তানের মতো শক্তিগুলো আফগানিস্তানের দিকে ঝুঁকে পড়তে পারে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply