Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » পাপুয়া নিউগিনিকে বিশাল চ্যালেঞ্জ দিল বাংলাদেশ




বাংলাদেশ ও পাপুয়া নিউগিনির মধ্যকার ম্যাচ। ছবি : সংগৃহীত প্রতিপক্ষ বড় নয়। তবুও ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই ম্যাচে সাফল্য নির্ধারণ করে দেবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ভাগ্য। এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে পাপুয়া নিউগিনিকে ১৮২ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। চলমান বিশ্বকাপে এটাই এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। আজ বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৮১ রান করে বাংলাদেশ। অবশ্য ইনিংসের শুরুতেই হোঁচট খায় বাংলাদেশ। প্রথম বলেই ক্যাচ তুলে দেন মোহাম্মদ নাঈম। তবে নাঈমের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে উপরে ওঠা বল জমাতে পারেননি পাপুয়া নিউগিনির উইকেটরক্ষক। দ্বিতীয় বলেও ছক্কার আশায় ক্যাচ তুলে দেন নাঈম। কাবুয়া মোরেয়ার লেগ স্টাম্পের বাইরের বল ডিপ স্কয়ার লেগে পাঠান নাঈম। বেশ উপরে ওঠা বল দৌড়ে গিয়ে মুঠোয় জমান সেসে বাউ। রানের খাতাও খুলতে পারেননি এই তরুণ ওপেনার। শুরুতে উইকেট হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। কিন্তু সেই চাপ অল্প সময়ের মধ্যেই কাটিয়ে ওঠে। শুরুর থাক্কা সামলে প্রতিরোধ গড়েন সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস। দুজনে মিলে গড়েন ৫০ রানের জুটি। সাকিবের সঙ্গে ভালো ইনিংস খেলার আশা জাগান রানের খরায় থাকা লিটন। তবে এবারও পারেননি বড় ইনিংস খেলতে। স্লগ সুইপে ছক্কার হাঁকাতে গিয়ে ক্যাচ আউট হয়ে ফিরেন ডানহাতি এই ওপেনার। অষ্টম ওভারে আসাদ ভালার অফ স্টাম্পের একটু বাইরের বল স্লগ সুইপ করেন লিটন। টাইমিং ঠিক রাখতে পারেননি। দৌড়ে গিয়ে ক্যাচ নিয়ে নেন সেসে বাউ। ২৩ বলে একটি করে ছক্কা ও চারে ২৯ রান করে ফেরেন লিটন। চারে ব্যাট করতে নেমে মুশফিকও পারলেন না থিতু হতে। ৮ বল খেলে ৫ রানে বিদায় নেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটার। তবে সতীর্থরা ফিরলেও টিকে ছিলেন সাকিব। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে প্রতিরোধ গড়েন তিনি। শেষ রানে সাকিবকে ফিরিয়ে প্রতিরোধ ভাঙেন আসাদ ভালা। বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে লং অনে আমিনির হাতে ক্যাচ তুলে দেন সাকিব। তিন ছক্কায় ৩৭ বলে ৪৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন সাকিব। এরপর লড়াই করেন মাহমুদউল্লাহ। মাত্র ২৭ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন। এটি তাঁর টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ হাফসেঞ্চুরি। ঝড়ো হাফসেঞ্চুরির পর অবশ্য আর টিকতে পারেননি তিনি। পরের বলেই আউট হন তিনি। ২৮ বলে ৫০ রান করে ফেরেন ড্রেসিং রুমে। মাহমুদউল্লাহ ফিরলে শেষ দিকের ব্যাটারদের ওপর ভর করে ওমানকে বড় কঠিন লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় লাল-সবুজের দল। এর আগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরে বিশ্বকাপ অভিযান কঠিন করে তোলে বাংলাদেশ। স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে যায় মাহমুদউল্লাহরা। তবে ওমানকে হারিয়ে এখনো টুর্নামেন্টে টিকে আছে তারা। আজ গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ, তাই মাহমুদউল্লাহদের বাঁচা-মরার লড়াই। পরের পর্বে যেতে হলে ম্যাচটিতে জয় ছাড়া বিকল্প নেই। তবে শুধু জয় নয়, আজ পাপুয়া নিউগিনিকে বড় ব্যবধানে হারাতে হবে বাংলাদেশকে। একই সঙ্গে তাকিয়ে থাকতে হবে স্কটল্যান্ড ও ওমানের মধ্যকার ম্যাচের দিকেও। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে স্কটল্যান্ড যদি ওমানকে হারিয়ে দেয় এবং বাংলাদেশ যদি পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে জয় পায়, তাহলে সরাসরিই সুপার টুয়েলভে উঠবে মাহমুদউল্লাহর দল।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply