Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » সাইফুদ্দিন-তাসকিনের পর সাকিবের জোড়া আঘাত




চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাঁচা-মরার লড়াইয়ে পাপুয়া নিউগিনির মুখোমুখি বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভে যেতে হলে ‘বি’ গ্রুপের এই ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই টাইগারদের। কম করে হলেও অন্তত ৩ রানের জয় পেলেই নিশ্চিত হবে টাইগারদের সুপার টুয়েলভ। সেই লক্ষ্যে ব্যাট করে ১৮১ রানের বিশাল স্কোর গড়েছে বাংলাদেশ। জবাব দিতে নেমে দেখে শুনে শুরুটা করলেও সাইফুদ্দিন-তাসকিন-সাকিবের বোলিং তোপে পাঁচ ওভার শেষ না হতেই চার উইকেট হারিয়ে বসেছে বিশ্বকাপের নবাগত সদস্য পাপুয়া নিউগিনি। পাঁচ ওভারে তাদের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৫ রান। এদিন ওপেনিংয়ে নামা লেগা সাইকাকে (৫) প্রথমে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরান মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। আর চতুর্থ ওভারে আক্রমণে এসে দ্বিতীয় বলেই পঞ্চাশতম ম্যাচ খেলতে নামা পিএনজি অধিনায়ক আসাদ ভালাকে (৬) সোহানের গ্লাভসবন্দী করে ফেরান তাসকিন আহমেদ। নিজের প্রথম ওভারেই মেডেন উইকেট নেন এই টাইগার পেসার। এরপর দৃশ্যপটে আবির্ভূত হন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। নিজের প্রথম ওভারেই তুলে নেন দুটি উইকেট। যাতে এক নিমিশে ১৫ রানে ৪ উইকেট হয়ে যায় পিএনজির স্কোর। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) মাস্কাটের আল আমেরাতে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ব্যাট করতে নেমেও নেতৃত্ব দেন সামনে থেকেই। সমান তিনটি করে চার-চক্কা হাঁকিয়ে মাত্র ২৭ বলে ফিফটি হাঁকানো মাহমুদউল্লাহ আউটও হন পরের বলেই। এছাড়া দলের সেরা তারকা সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে আসে মূল্যবান ৪৬টি রান। ৩৯ বল মোকাবেলায় সাকিবের অনন্য মাইলফলক স্পর্শ করা এই ইনিংসে ছিল কেবল ৩টি ছক্কার মার। যে ইনিংসে এদিন তিনি লঙ্কান গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারা ও ভারতের ভবিষ্যৎ অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে টপকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় চার নম্বরে অবস্থান করে নিয়েছেন। এছাড়া তৃতীয় সর্বোচ্চ ২৯ রান আসে ক্রমাগত ব্যর্থ হওয়া ওপেনার লিটন দাসের ব্যাট থেকে। আর শেষ দিকে আফিফের ১৪ বলে ২১ এবং মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের মাত্র ৬ বলে ১৯ রানের ক্যামিও ইনিংসে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৮১ রানের বিশাল স্কোর গড়ে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ পাপুয়া নিউগিনির পক্ষে ২টি করে উইকেট লাভ করেন কাবুয়া মোরেয়া, ড্যামিয়েন রাভু ও অধিনায়ক আসাদ ভালা। বাকি উইকেটটি ঝুলিতে ভরেন মাত্র একটি ওভার করে ছয় রান দেয়া সাইমন আতাই।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply