Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » মালদ্বীপকে থামাতে পারল না বাংলাদেশ




বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের ম্যাচ। ছবি-সংগৃহীত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল বাংলাদেশ ফুটবল দল। এরপর রুখে দিয়েছিল শক্তিশালী ভারতকে। টানা দুই ম্যাচে অপরাজেয় থাকার আত্মবিশ্বাস নিয়েও মালদ্বীপকে থামাতে পারেনি লাল-সবুজের দল। স্বাগতিকদের কাছে চলতি আসরে প্রথম হারের তেতো স্বাদ পেল অস্কার ব্রুসনের দল। আজ বৃহস্পতিবার মালদ্বীপের রাজধানী মালের রাশমি ধান্দু স্টেডিয়ামে বাংলাদেশকে ২-০ গোলে হারিয়েছে স্বাগতিকরা। মালদ্বীপের হয়ে জালের দেখা পেয়েছেন হামজা মোহাম্মদ ও আলি আশরাফ। সাফের চলতি আসরে মালদ্বীপের শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি। ভালো খেলেও কখনও সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে না ওঠা নেপালের কাছে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ১-০ গোলে হারে প্রতিযোগিতাটির শিরোপাধারীরা। তাই আসরে টিকে থাকতে আজ জয় ছাড়া বিকল্প ছিল না তাদের। নিজেদের লক্ষ্যে সফল মালদ্বীপ। প্রথমার্ধে বাংলাদেশকে পরীক্ষায় ফেলতে না পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে ঠিকই জয় তুলে নেয়। এদিন স্বাগতিকদের বিপক্ষে দুটি পরিবর্তন এনে একাদশ সাজান বাংলাদেশ কোচ ব্রুসন। কার্ডের কারণে বাদ যাওয়া বিশ্বনাথ ঘোষ ও রাকিব হোসেনের জায়গায় দলে নেন রহমত মিয়া ও সোহেল রানাকে। তাতে তেমন সুফল আসেনি। ম্যাচের বেশিরভাগ সময় বল দখলে রেখেছে মালদ্বীপ। ৬৩ ভাগ সময় বল দখলে রেখে ১২টি আক্রমণ করেছে তারা। যার ৬টি ছিল অনটার্গেট শট। বিপরীতে সাতটি শট নিয়ে অনটার্গেটে মাত্র একটি নিতে পেরেছিল বাংলাদেশ। সেটি থেকেও গোল আসেনি। তবে ম্যাচের প্রথমার্ধে বাংলাদেশের রক্ষণে চিড় ধরাতে পারেননি মালদ্বীপ। ভালোভাবেই স্বাগতিকদের আটকে রাখেন জামালরা। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে আর সম্ভব হয়নি। দুই গোল করে ম্যাচ নিজেদের করে নেয় স্বাগতিকরা। বিরতির পর ৫৫ মিনিটে এগিয়ে যায় মালদ্বীপ। গোলটি করেন হামজা। এরপর ৭৪ মিনিটে স্কোরলাইন ২-০ করেন আশফাক। দুই গোল খাওয়ার পর আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত পরাজয় নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়। পয়েন্ট টেবিলে দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে এক নম্বরে আছে নেপাল। এক জয়, এক ড্র ও এক পরাজয় নিয়ে দ্বিতীয়তে আছে বাংলাদেশ। আর দুই ম্যাচ খেলে এক জয় ও এক হার নিয়ে তিনে আছে মালদ্বীপ। দুই ড্রয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে সাফের রেকর্ড সাতবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। তিন ম্যাচে ১ পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে শ্রীলঙ্কা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply