Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » শাখারভ পুরস্কার পেলেন নাভালনি




রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমালোচক অ্যালেক্সেই নাভালনিকে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের বার্ষিক মানবাধিকার পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। শাখারভ পুরস্কার পেলেন নাভালনি পুতিনের ক্ষমতা কুক্ষিগত করার বিরুদ্ধে তার চ্যালেঞ্জের সাহসিকতার জন্য বুধবার (২০ অক্টোবর) তাকে এই সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে। ২০২০ সালের আগস্ট থেকে কারাগারে রয়েছেন ৪৫ বছর বয়সী নাভালনি। তার বিরুদ্ধে প্যারলের শর্ত লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে। যদিও তার সমর্থকেরা বলছেন, এটা অজুহাত। নাভালনিকে কারাবন্দি ও নার্ভ এজেন্ট প্রয়োগের ঘটনায় বেশ কয়েক রুশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। এক টুইট পোস্টে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট বলছে, ভ্লাদিমির পুতিন সরকারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে তিনি অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। এতে তার স্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে, জীবন ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছে। এই অসম সাহসিকতার স্বীকৃতি হিসেবে তাকে এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। এই সময় অতি সত্বর নাভালনির মুক্তি দাবি করেছে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। চিন্তার স্বাধীনতার জন্য দেওয়া ৫০ হাজার ডলারের শাখারভ পুরস্কার এর আগে পেয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট নেলসন ম্যান্ডেলা ও পাকিস্তানি শিক্ষা অধিকারকর্মী শান্তিতে নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজায়ী। রুশ ভিন্নমতাবলম্বী অ্যান্দ্রেই শাখারভের নামানুসারে এই পুরস্কারের নামকরণ করা হয়েছে। ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ন্যাটোর মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ। আরও পড়ুন: করোনায় বিপর্যস্ত রাশিয়া, কর্মস্থল বন্ধ ঘোষণা ব্রাসেলসে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, অ্যালেক্সেই নাভালনি যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন, এই স্বীকৃতি তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। রাশিয়ায় জোরালো প্রতিবাদ ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের সমর্থনে তিনি বহু বছর ধরে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রেখে আসছেন। এ পুরস্কারকে নিজের জন্য সম্মানের বলে মন্তব্য করে নাভালনি জানিয়েছেন, এটি শুধু সম্মানেরই নয়, এক বিরাট দায়িত্বও। এই পুতিন সমালোচক বলেন, যারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়ছে, তাদের একজন আমি। ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতি কৃতজ্ঞ, তারা আমাদের কাজকে ব্যাপক প্রশংসা করেছেন। আমরা আমাদের সেরাটা করার চেষ্টা করে যাব। আর ক্রেমলিন জানায়, ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সিদ্ধান্তের প্রতি তাদের কোনো সম্মান নেই। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেন, ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতি আমাদের সম্মান আছে। কিন্তু তাদের সিদ্ধান্তকে আমরা সম্মান জানাতে পারছি না






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply