Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » ছোট থেকে বাবাকে নিয়ে বহু সমালোচনা শুনেছি, মানসিক অবসাদেও ভুগেছি: শ্যানন কুমার শানু




ছোট থেকে বাবাকে নিয়ে বহু সমালোচনা শুনেছি, মানসিক অবসাদেও ভুগেছি: শ্যানন কুমার শানু হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে ‘আজা’, নিজের ইংরেজি গান ‘রিট্রেস’— ভারতের কাঁটাতার পেরিয়ে শ্যানন কুমার শানু আজ আমেরিকার গায়িকা! বর্ণ বিদ্বেষ, পরিবারের দিকে ধেয়ে আসা সমালোচনা, সব কিছু জয় করে আনন্দবাজার অনলাইনের কাছে অকপট ‘মেলডি কিং’ কুমার শানুর অষ্টাদশী কন্যা।

শ্যানন: আমি মনে করি, প্রত্যেকটা মানুষই ব্যর্থতাকে ভয় পায়। আমিও ব্যতিক্রম নই। কিন্তু এ ক্ষেত্রে যে শিক্ষাটা সব থেকে প্রয়োজন, তা হল নিজেকে সামলানো। ব্যর্থতা তো জীবনের অঙ্গ। তাকে সঙ্গে নিয়ে কী ভাবে বাকি পথটা চলব, সেটাই শিখে নেওয়া উচিত। বাবাকে দেখেছি আমি। পেশাদার জীবনে খুব খারাপ সময়েও বাবা হাসিমুখে সব সহ্য করেছেন। বাবা বলেন, ‘‘জীবনে যা পেয়েছ, তার জন্য সব সময়ে ঈশ্বরের কাছে কৃতজ্ঞ থেকো। প্রয়োজনের বেশি লোভ ভাল নয়। তোমার কপালে যা আছে, সেটুকুই তুমি পাবে। তার বেশিও পাবে না, কমও না।’’ প্রশ্ন: কুমার শানু এবং আপনার গানের ধরন তো ভীষণ আলাদা, বাবা আপনার গান শুনে কী বলেন? শ্যানন: বাবা আমার সঙ্গীতগুরু। আমার গান পছন্দ হলে প্রশংসা করেন। আবার দরকার পড়লে ধমক দেন। ভুল শুধরেও দেন। আমি বাবার কথা শুনে চলি। জীবনের বহু ক্ষেত্রে বাবা এমন কিছু পরামর্শ দিয়েছেন, যা ভীষণ কাজে লেগেছে। বাবা মাঝে মাঝে আমার গান শুনে খুব বিস্মিত হন। বাবা কিন্তু আমার গাওয়া সমস্ত গান শোনেন। আমিও প্রত্যেকটা গান রেকর্ড করার পরে বাবাকে শোনাই। ওঁর পরামর্শ ছাড়া আমার চলে না।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply