Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » কুয়েতে এমপি পাপুলের ৭ বছরের কারাদণ্ড




মানবপাচার মামলায় বাংলাদেশের লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সাবেক এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে কুয়েতের একটি আদালত। সাবেক এই বাংলাদেশি এমপিকে সাত বছরের কারাদণ্ডের সঙ্গে ২৭ লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানা প্রদানের আদেশও দিয়েছেন কুয়েতের শীর্ষ আপিল আদালত। পাপুল ছাড়াও কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডারসেক্রেটারি মেজর জেনারেল মাজেন আল-জাররাহ, জনশক্তি পরিচালক হাসান আল খিদরকেও ৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া কুয়েতের ওই সরকারি কর্মকর্তাদের ঘুষের মামলায় নিজ নিজ পদ থেকে বহিষ্কারেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে একই মামলায় কুয়েতের সাবেক এমপি সালাহ খুরশিদকেও সাত বছরের কারাদণ্ড এবং প্রায় সাড়ে সাত লাখ কুয়েতি দিনার জরিমানা করা হয়েছে। কুয়েতে মানব ও অর্থ পাচারের দায়ে লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র সাংসদ কাজী শহিদ ইসলাম ওরফে পাপুলের চার বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন দেশটির আদালত। সাংসদ শহিদ ইসলাম ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়ায় ২২ ফেব্রুয়ারি আসনটি পদ শূন্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এবং সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত লক্ষ্মীপুর-২ আসন। এখানে মোট ভোটার ৪ লাখ ২৯ হাজার ৬৩ জন। শুধু কুয়েতে নয়, দেশেও তার বিরুদ্ধে মানবপাচার ও মানিলন্ডারিংয়ের মাধ্যমে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। রয়েছে পরিবারের নামে-বেনামে ব্যাংকের ঋণ নেয়া, সম্পদ ভোগ, নিজের ও স্ত্রীর নামে শেয়ার কিনে ব্যাংকের পরিচালক হওয়ার অভিযোগ। যার আড়ালে ২০১৬ সাল থেকে হাজার কোটি পাচারের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। আরও পড়ুন: ভারতে করোনা আক্রান্ত দক্ষিণ আফ্রিকার ২ নাগরিক ইংরেজি দৈনিক আরব টাইমস জানিয়েছে, পাপুল ও তার কোম্পানির অ্যাকাউন্টে ৫ মিলিয়ন কুয়েতি দিনার রয়েছে। যার মধ্যে ৩ মিলিয়ন দিনার কোম্পানির মূলধন। যা ফ্রিজ করেছে দেশটির আইনী সংস্থা। গেল বছর ২৬ ফেব্রুয়ারি কমিশন পাপুলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্থপাচার ও শত শত কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর দুদকের পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল আউয়ালকে অনুসন্ধান তদারকি কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়। পরে দুদকের উপপরিচালক মো. সালাহউদ্দীনকে কমিশন অনুসন্ধান কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়। অনুসন্ধানের ধারাবাহিকতায় ১৭ জুন দুদক পাপুলের স্ত্রী, মেয়ে ও শ্যালিকার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জানিয়ে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করে পুলিশের বিশেষ শাখায় (এসবি) চিঠি দেয়। এরপর গত ২২ জুন পাপুল, স্ত্রী সেলিনা, মেয়ে ওয়াফা ইসলাম ও শ্যালিকা জেসমিনের ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক দেশি-বিদেশি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে থাকা সব ব্যাংক হিসাব স্থগিত করতে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দেয় দুদক। সাধারণ শ্রমিক হিসেবে কুয়েত গিয়ে বিশাল সাম্রাজ্য গড়ে তোলেন পাপুল। ২০১৮ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন লক্ষ্মীপুরের আসনটিতে। ওই নির্বাচনে ওই আসনটি আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দিয়েছিল।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply