Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » নদীর প্রাণ ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে উত্তাল ইরান




মধ্য ইরানের ইস্পাহানে শুকিয়ে যাওয়া একটি বড় নদীর প্রাণ ফিরিয়ে আনার দাবিতে কয়েক হাজার মানুষ বিক্ষোভ করেছেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সম্প্রচার করা ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) একটি বিরান অঞ্চলে বিপুল সংখ্যক কৃষক ও সাধারণ মানুষকে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করছেন। ওই এলাকা দিয়েই একসময় খরস্রোতা জায়ানদেহ রুদ নদীটি প্রবাহিত হয়েছিল। ইস্পাহান প্রদেশের খাজু সেতুর কাছ দিয়ে এই প্রবাহ ছিল। দোহাভিত্তিক আল-জাজিরা টেলিভিশন এমন খবর দিয়েছে। ‘ইস্পাহনকে শ্বাস ফিরিয়ে দাও, আমাদের জায়ানদেহ নদী ফিরিয়ে দাও’ বলে বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দিয়েছেন। কয়েকজনকে ‘সমতা ও ন্যায়বিচারের’ দাবিও তুলতে দেখা গেছে। নদীর শুষ্কতায় সরাসরি হাজার হাজার মানুষের জীবন-জীবিকায় প্রভাব ফেলেছে। বহু কৃষকের ফসলের মাঠ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া এতে জলবায়ুর ওপরও বিরূপ প্রভাব পড়েছে। বছরের পর বছর ধরে গুরুত্বপূর্ণ এ নদীটিতে পানি নেই। এর মধ্যে রয়েছে অনাবৃষ্টির ক্ষতির প্রভাব। এ কঠিন পরিস্থিতিতে সরকারের মনোযোগ আকর্ষণ করতে কৃষকেরা প্রায়ই বিক্ষোভ করেন। কিন্তু সেখানকার সরকারি কর্মকর্তারা কোনো টেকসই সমাধান বের করতে পারেননি। দশকের পর দশক ধরে খরার সঙ্গে লড়তে হচ্ছে ইরানকে। গত এক দশকে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার নিয়েছে পশ্চিম এশিয়ার এই দেশে। পরিবেশবিদেরা বলছেন, এ সময়ে দেশের সব প্রদেশেই কমবেশি খরার প্রভাব পড়েছে। তবে ইসফাহানের অন্যতম পরিচয় জায়ানদেহ রুদের মতো একটা গোটা নদী নিশ্চিহ্ন হয়ে যাওয়ার মতো নজির সত্যিই বিরল। আরও পড়ুন: ইসরায়েলি প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বাসভবনে ইরানের হয়ে গুপ্তচরবৃত্তি! এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে বিক্ষোভ দেখিয়ে আসছিলেন কৃষকেরা। কিন্তু শুক্রবারের প্রতিবাদে এতো বেশি মানুষ অংশ নিয়েছেন যে তাতে সরকার নড়েচড়ে বসেছে। পরিবেশবাদীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। এছাড়া বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে সরাসরি বক্তব্য দিয়েছেন তার ফার্স্ট ভাইস-প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মোকাব্বর। সংকটের সমাধানে কৃষিমন্ত্রীকে তিনি নির্দেশ দিয়েছেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply