Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » ইরাকে মার্কিন জোটের সামরিক অভিযান সমাপ্তির দাবি




ইরাকে ইসলামিক স্টেট জঙ্গিগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে মার্কিন নেতৃতাধীন জোটের সামরিক অভিযান শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছে ইরাকের জাতীয় সামরিক উপদেষ্টা। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা জানায়, বৃহস্পতিবার ইরাকের জাতীয় সামরিক উপদেষ্টা কাসিম আল আরাজি আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযান সমাপ্ত করে ইরাকি বাহিনীকে সহায়তা করার জন্য একটি উপদেষ্টা কমিটি গঠনের জন্যে ইরাকের রাজধানীতে প্রযুক্তিগত আলোচনার চূড়ান্ত পর্বে যোগ দেন। পরে আরাজি একট টুইট বার্তায় লিখেন আমরা আনুষ্ঠানিক ভাবে জোটের যৌথ অভিযান সমাপ্তের ঘোষণা দিচ্ছি। তিনি আরও লিখেছেন, ইরাকি বাহিনীর প্রশিক্ষণ, পরামর্শ ও সক্ষমতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক জোটের সাথে সম্পর্ক অব্যাহত থাকবে। এদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাৎক্ষণিকভাবে অভিযান সমাপ্তের ঘোষণা নিশ্চিত করেনি। যদিও পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বুধবার বলেছেন "আমাদের প্রতিশ্রুতি বজায় রাখবো। এই বছরের শেষ নাগাদ যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী কোনও মার্কিন বাহিনী থাকবে না"। আরও পড়ুনঃ ইউক্রেন-সীমান্তে-১-লাখের-বেশি-সেনা-মোতায়েন-রাশিয়ার ইরাকি কুর্দি পেশমার্গা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হাজহার ইসমাইল, যিনি বাগদাদের ওই বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন, তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট জানিয়েছে তারা আগের ঘোষণা অনুযায়ী সময়সীমার মধ্যে তাড়াতাড়ি মিশন শেষ করতে প্রস্তুত। তিনি আরও বলেন, "মার্কিন জোট বলেছে আজ থেকেই আমরা প্রস্তুত'। এদিকে জুলাই মাসে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আল-কাদিমির সঙ্গে সাক্ষাতের পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অভিযান সমাপ্তির যে পরিকল্পনার ঘোষণা করেছিলেন, তা শেষ হওয়ার পর ইরাকের পরিস্থিতির উপর কি প্রভাব ফেলবে তা এখনও স্পষ্ট নয়। ইরাকে বর্তমানে প্রায় ২ হাজার ৫০০ মার্কিন সেনা এবং আরও ১ হাজার জোটের বিভিন্ন দেশের সেনা হয়েছে। ২০০৩ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বব্যাপী "সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের" অংশ হিসেবে ইরাকে আক্রমণ করে। ২০১১ সালে সেনা প্রত্যাহারের আগে এবং ২০০৭ সাল থেকে ইরাকে ১ লাখ ৭০ হাজার সৈন্যে ইরাকে অবস্থান করছিল। এদিকে ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠীর উত্থানের পর তাদের দমনে মার্কিন বাহিনী ইরাকে পুনরায় মোতায়েন করা হয়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply