Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » শুতে দিলে ঘুমাতে চায় বিএনপি: আইনমন্ত্রী




শুতে দিলে ঘুমাতে চায় বিএনপি: আইনমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, কথায় আছে-দাঁড়াতে দিলে বসতে চায়, বসতে দিলে শুতে চায়, আর শুতে দিলে ঘুমাতে চায়, বিএনপি অবস্থাটা এ রকম হয়ে গেছে। তারা এখন বলে খালেদা জিয়াকে বিদেশে যেতে দিতে হবে। পরিষ্কার কথা, আইন অনুযায়ী নিষ্পত্তিকৃত দরখাস্ত আবার পুনর্বিবেচনার কোনো সুযোগ থাকে না। দুবার তাদের আবেদন আদালত নাকচ করেছেন। শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) বেলা ১১টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া উপজেলা সদরের সড়ক বাজারে শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণকালে এসব কথা বলেন তিনি। আইনমন্ত্রী বলেন, এতিম ও অসহায়-দুস্থদের টাকা আত্মসাতের দায়ে বেগম জিয়াকে বিচারিক আদালত পৃথক দুটি মামলায় রায়ে একটিতে ১০ বছর, অন্যটিতে ৭ বছর সাজা দিয়েছেন। গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ডেকে বলেছিলেন, পরিবারের আবেদন করেছে বেগম খালেদা জিয়া অসুস্থ, আইনের মাধ্যমে তাকে ছেড়ে দেওয়ার ব্যবস্থা কর। সেদিন তাকে আমরা দুটি শর্তে ছেড়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিলাম‌। একটি হলো তিনি বিদেশ যেতে পারবেন না। অপরটি হলো বাড়ি থেকে চিকিৎসা নেবেন। হাসপাতালে যেতে বাধা নেই। এত কিছু করার পরও মানবিক কারণে দণ্ডাদেশ স্থগিত রেখে প্রধানমন্ত্রী নির্বাহী আদেশে তাকে মুক্তি দেন। এখন বলে বিদেশে যেতে দিতে হবে। আইনে সে সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে ১৫ জন আইনজীবী আমার সাথে দেখা করেছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই আমি জানি, আমি যে আইনের কথা বলছি এবং আমি যে আইনে এটা নাকচ করেছি সেটি সঠিক। তারপরও উনাদের (বিএনপি) আইনজীবীদের কথা অনুযায়ী, কোথাও কোনো নজির আছে কিনা সেটা দেখার জন্য আমি একটু সময় নিয়েছি। আর সেই সময় নেওয়ার সুযোগে তারা বলেন, আন্দোলন করবেন। এক দফা এক দাবি। মানবিকতা আন্দোলনের মাধ্যমে কামাই করা যায় না। আইন আইনের গতিতে চলতে দিন। জিয়াউর রহমানের গতিতে আইন চলবে না। আপনাদের গতিতে চলবে না। সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব গোলাম সারওয়ার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসক (ডিসি) হায়াত-উদ-দৌলা খান, পুলিশ সুপার (এসপি) আনিসুর রহমান, পৌরসভার মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রোমানা আক্তারসহ স্থানীয় নেতারা।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply