Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » দেশ ছাড়লেন ডা. মুরাদ




দেশ ছেড়ে কানাডার পথে রওনা হয়েছেন সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) রাত সোয়া ১টার পর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এর আগে বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবেশ করেন তিনি। ফ্লাইট ছাড়ার আগ মুহুর্ত পর্যন্ত বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে অবস্থান করছিলেন ডা. মুরাদ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা ৪ মিনিটে গুলশানের এক নম্বর থেকে দুই নম্বর যাওয়ার সময় তাকে দেখা যায়। এসময় তিনি সাদা রংয়ের ল্যান্ড ক্রুজার (গাড়ি নম্বর -ঢাকা মেট্রো -ঘ ১৮: ৩৮২৭) গাড়িটি নিজেই চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এসময় গাড়িতে একাধিক লাগেজ ছিল। তিনি ছাড়া গাড়িতে কেউ ছিলেন না। পরে গাড়িটি আজাদ মসজিদের পাশের রাস্তা দিয়ে দ্রুত গতিতে বনানীর দিকে এগিয়ে যায়। এছাড়া গতকাল বুধবার (৮ ডিসেম্বর) কানাডায় যাওয়ার জন্য টিকিট কাটেন বলে সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইনস সূত্র সংবাদমাধ্যমকে জানায়। জানা যায়, প্রতিমন্ত্রী থাকা অবস্থায় মুরাদ হাসানের যে লাল পাসপোর্ট (বিশেষ পাসপোর্ট) ছিল, সেটি পদত্যাগের দিন মঙ্গলবার বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। আরও পড়ুন: দেশ ছাড়তে বিমানবন্দরে ডা. মুরাদ এ প্রসঙ্গে জানতে মুরাদ হাসানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। গত কয়েকদিন ধরে সারা দেশের টক অব দ্য কান্ট্রি সদ্য পদত্যাগ করা প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একাধিক অডিও-ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর অনেকটাই আত্মগোপনে চলে গেছেন আলোচিত সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী। গণমাধ্যম বারবার যোগাযোগ করেও তার সাথে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়েছে। পদত্যাগপত্র জমা দিতেও আসেননি সচিবালয়ে। বেশ কিছুদিন ধরে বিভিন্ন কারণে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন ডা. মুরাদ হাসান। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একটি অডিও ক্লিপ। যেখানে কথা বলেন ডা. মুরাদ হাসান। অপর প্রান্তে ছিলেন চিত্রনায়ক ইমন ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। ফাঁস হওয়া ওই কথোপকথনে মুরাদ মাহিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। পুরো বক্তব্যে ‘অশ্রাব্য’ কিছু শব্দ উচ্চারিত হয়েছে। বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply