Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » বঙ্গবন্ধুর খুনিরা কে, কোথায়?




দীর্ঘ ৩৪ বছরের নানা নাটকীয়তার পর, ২০০৯ সালের ১৯ নভেম্বর চূড়ান্ত রায় হয় বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার। এ মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১২ আসামির মধ্যে এখন পর্যন্ত ফাঁসি কার্যকর হয়েছে ৬ জনের। এখনো বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃতখুনি ও মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত ৫ আসামি রয়েছেন পলাতকের তালিকায়। এরা হলেন-খন্দকার আবদুর রশিদ, শরিফুল হক ডালিম, এবিএমএইচ নূর চৌধুরী, মোসলেম উদ্দিন ও রাশেদ চৌধুরী। খন্দকার আব্দুর রশিদ, শরীফুল হক ডালিম কোথায় আছে তথ্য নেই সরকারের কাছে। এ এম রাশেদ চৌধুরী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং নূর চৌধুরী কানাডায় অবস্থান করছে। পলাতক অবস্থায় জিম্বাবুয়েতে মারা যায় আজিজ পাশা। ২০১৯ সালের ৭ এপ্রিল রাতে রাজধানীর মিরপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় খুনি আব্দুল মাজেদকে। গ্রেপ্তারের ৫ দিন পর ১২ এপ্রিল তার ফাঁসি কার্যকর করা হয়। সরকারের তথ্যমতে, রাশেদ চৌধুরী বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র এবং নূর চৌধুরী কানাডায় স্থায়ীভাবে বাস করছেন। বাকিদের সম্পর্কে সরকারের কাছে আনুষ্ঠানিক কোনো তথ্য নেই। তাদের দেশে ফিরিয়ে আনতে কয়েক বছর ধরেই কূটনৈতিক তৎপরতা চালাচ্ছে সরকার। যদিও খুনিদের বিদেশ থেকে ফিরিয়ে আনতে এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি দেখা যায়নি। আরও পড়ুন: দেশব্যাপী শুরু হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতা বইমেলা’ আর অবশিষ্ট তিনজনের বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য সরকারের কাছে না থাকলেও পুলিশ এবং গোয়েন্দা সস্থার দাবি, এ তিনজন এশিয়া, ইউরোপ ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে আসা-যাওয়া করছেন। তাদের গ্রেপ্তারে ইন্টারপোলের পরোয়ানা জারি অব্যাহত রয়েছে। দণ্ডিত অপরজন আবদুল আজিজ পাশা পলাতক অবস্থায় জিম্বাবুয়েতে মারা গেছেন। খন্দকার আবদুর রশিদ কোনো সময় পাকিস্তানে কোনো সময় লিবিয়ায় আর শরিফুল হক ডালিম পাকিস্তানে রয়েছেন বলে খবর প্রকাশ পায়। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঢাকায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারের ১৮ জনকে হত্যা করা হয়। এ হত্যাকাণ্ডের আত্মস্বীকৃত খুনিদের পরবর্তীকালে দূতাবাসে চাকরিসহ বিদেশে পুনর্বাসন করে জিয়াউর রহমানের সরকার।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply