Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » কলকাতা পৌরসভা নির্বাচনে বিরোধীদের হারিয়ে বড় জয় পেল তৃণমূল কংগ্রেস




কলকাতা পৌরভোট : তৃণমূলের আরও জৌলুস, পতনের ‘মুখে’ বিজেপি তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা পৌরসভা নির্বাচনে বিরোধীদের হারিয়ে বড় জয় পেল পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। কলকাতা পৌরসভার ১৪৪টি ওয়ার্ডের মধ্যে তৃণমূল এগিয়ে রয়েছে ১৩৪টিতে।

তৃণমূলের এই বিপুল জয়ের পরেই তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘কলকাতা পৌরভোটে মানুষ যে রায় দিয়েছে তারপরে আমাদের আরও মাথা নত করে কাজ করতে হবে। উৎসবের মেজাজে ভোট হয়েছে। এই জয় গণতন্ত্রের জয়। যে রায় কলকাতার মানুষ দিয়েছে তারপরে আমাদের আরও বেশি করে কাজ করতে হবে।’ এদিন মমতা বিজেপিকে আক্রমণ করে বলেন, ‘জনতার রায়ে বিজেপি ভোকাট্টা। বামেরা নো-পাত্তা আর কংগ্রেস স্যান্ডুইচ হয়ে গিয়েছে।’ এদিকে আজ মঙ্গলবার দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে আসাম যান মমতা। বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা দেওয়ার আগে মমতা জানান, কলকাতায় বড় শক্তি নিয়ে তৃণমূলের জয় নিশ্চিত হয়ে গেছে। সেই জয়কে সাধারণ মানুষের জন্য উৎসর্গ করেন মমতা। কলকাতা পৌরসভা নির্বাচনের ফলাফল দেখিয়ে দিয়েছে তৃণমূলের সমর্থন বেড়েছে, কমেছে বিজেপির। এক ধাক্কায় বিজেপি নেমে গেছে ১০ শতাংশের নিচে। ২০১৯-এ যে আশা দেখিয়েছিল বিজেপি, ২০২১ সেই ফল ধরে রাখতে পারেনি দলটি। প্রাপ্ত ভোট শতাংশে বিরাট পতন দেখা গেছে বিজেপির। গেরুয়া ভোটে ধস নেমেছে কলকাতায়। বামেরা উঠে এসেছে দ্বিতীয় স্থানে ও ভোটের হিসাবে বিজেপি নেমে গেছে তৃতীয় স্থানে। তৃণমূল যেখানে ৭০ শতাংশের বেশি ভোট পেয়েছে, সিপিএম বা বামেরা সেখানে পেয়েছে ১১ শতাংশ ভোট। সিপিএমের ভোট প্রাপ্তি তাদের নতুন করে অক্সিজেন দিচ্ছে আর বামেরা তাদের ভোট শতাংশ প্রায় দ্বিগুন বাড়িয়েছে। বামেরা যখন বেড়ে ১১ শতাংশ হয়েছে, বিজেপি তখন কমে নয় শতাংশ। বিজেপির এই পতন গেরুয়া শিবিরকে ভাবিয়ে তুলেছে। এই পতন কি কলকাতা মানুষের প্রত্যাখ্যান করায়, নাকি ভোটযুদ্ধে হারিয়ে যাওয়ার কারণে- তা বিশ্লেষণ করছে দল। সিপিএমের ভোট প্রাপ্তি তাদের নতুন করে অক্সিজেন দিচ্ছে। বিজেপির মতো শক্তি পিছু হটায় খুশি তৃণমূল কংগ্রেসও। একুশের নির্বাচনে মাত্র একটি আসনে এগিয়েছিল কংগ্রেস। এবার দুটি আসনে জয়যুক্ত হয়েছে তারা। অনেক আসনে তারা দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। সিপিএম ও কংগ্রেসের এই উত্থান বাংলা তথা কলকাতার পক্ষে শুভ লক্ষণ বলে দাবি করেছে তৃণমূল। কারণ বিজেপির মতো শক্তি পিছু হটায় বাংলা বিভাজনের করাল ছায়া থেকে মুক্তি পাবে বলে মনে করছে তৃণমূল। কলকাতা পৌরসভার একাধিক ওয়ার্ডে ৭৫ থেকে ৮২ শতাংশ ভোট পেয়েছে তৃণমূল। নির্বাচনের ফলাফলের পরিসংখ্যানে দেখা গেছে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বিজেপি তৃতীয় স্থানে চলে গেছে। বিধানসভা ভোটে যেখানে বিজেপির প্রাধ্যান্য ছিল অধিকাংশ ওয়ার্ডে, সেখানে বামেরা দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে। অনেক ক্ষেত্রে কংগ্রেসও






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply