Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » থাইল্যান্ডে বানর উৎসব




চারদিকে উৎসবের আমেজ, থরে থরে সাজানো তরমুজ, আনারস, গাজর, শসা, ড্রাগন ফল, কলা। কী নেই সেখানে? আছে সবজি আর ডুরিয়ানের মতো বহুমূল্য ফলও। শুনতে বেশ অবাক লাগলেও বুফে এমন আয়োজন করা হয়েছে শুধুমাত্র বানরের জন্য! আর রঙিন পোশাকে নেচে গেয়ে তা উপভোগ করতে জড়ো হয়েছেন শত শত পর্যটক ও দর্শনার্থী। বলছি, থাইল্যান্ডের লোপবুরি শহরে অনুষ্ঠিত ‘মাঙ্কি ফেস্টিভ্যাল’ এর কথা। করোনা মহামারির কারণে প্রায় দুই বছর বন্ধ থাকার পর এ বছর থাইল্যান্ডের লোপবুরিতে এই ঐতিহ্যবাহী বানর উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। এটি এমনই এক আজব উৎসব, যেখানে লম্বা লেজের ‘ম্যাকাক’ বানর দলে দলে এসে সেখানে উপস্থিত লোকজনের গায়ে, মাথায় উঠে বিভিন্ন ফল ও সবজি খেতে থাকে। কয়েকজন পর্যটককে আবার ক্যামেরা নিয়ে প্রাণিগুলোর সঙ্গে খেলতেও দেখা গেছে। থাইল্যান্ডের লোপবুরি শহরে পর্যটকদের আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু হলো বানর। এজন্য ওই অঞ্চলটি ‘বানর প্রদেশ’ নামেও পরিচিত। স্থানীয়দের মতে, প্রাণিটির প্রতি ধন্যবাদ জানাতেই তারা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকেন। জানা গেছে, এবারের উৎসবে বানরের জন্য প্রায় দুই টন সবজি ও ফল রাখা ছিল। আরও পড়ুন: জাপানের সুইসাইড ফরেস্ট ঐতিহ্যবাহী এই উৎসবের আয়োজক ইয়ংইউথ কিটওয়াতানা’নউসন্ট। এ পর্যন্ত ৩০টিরও বেশি বানরের উৎসব আয়োজন করেছেন এই থাই নাগরিক। তিনি মনে করেন, এবারের বানর উৎসবটি বিশেষ এক আয়োজন। কারণ লোপবুরির বানর দামি জিনিস পছন্দ করে। এই উৎসবের আয়োজনে থাইল্যান্ডের মুদ্রায় খরচ ধরা হয় এক লাখ বাথ। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমান আড়াই লাখ টাকারও বেশি। এবারের মাঙ্কি ফেস্টিভ্যালের স্লোগান ছিল ‘হুইলচেয়ার বানর’। জানা গেছে, এই উৎসব থেকে যা আয় হয়েছে তা দিয়ে একশ মানুষের জন্য হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply