Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » নির্বাচন এলেই একটি পক্ষ অপপ্রচারে নামে: আইভী




আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, ‘নির্বাচন এলেই একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নামে। আপনারা অপপ্রচারে কান দেবেন না। আমি দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে সবার জন্য উন্নয়ন করেছি।’ শনিবার বিকেলে বন্দরে ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এদিকে নির্বাচন কমিশনের কাছে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড (সব দলের জন্য সমান সুযোগ) দাবি করেছেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। শুক্রবার বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জের ধনকুণ্ডা এলাকায় আয়োজিত উঠান বৈঠকে তিনি এ দাবি জানান। দিনব্যাপী নগরের বিভিন্ন মসজিদে নামাজ আদায় করে মুসল্লিদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন তিনি। ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের গোকুলদাসের বাগ এলাকার চাপাতলী মাঠে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বন্দর উপজেলার ১২২ বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএম গনি ভূঁঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন। উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু। ব্যানারে নাম না থাকলেও অনুষ্ঠানের অন্যতম অতিথি ছিলেন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি বলেন, যখন উন্নয়ন করেছি, তখন কোনো দল দেখিনি। এই এলাকার রাস্তা করার পর দেখিনি এ রাস্তা দিয়ে বিএনপি নাকি আওয়ামী লীগের নেতারা হাঁটবেন। মাঠ যখন করেছি তখন দেখিনি এই মাঠে বিএনপি নাকি আওয়ামী লীগের নেতার সন্তানরা খেলবে। তিনি বলেন, যেহেতু আপনারা সবাই কর দেন, তাই উন্নয়নের ক্ষেত্রে দলমত দেখিনি। এদিকে সিদ্ধিরগঞ্জের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে উঠান বৈঠকে তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে বিএনপি বিশাল সমাবেশ করেছে। আমাকে রিটার্নিং কর্মকর্তা টেলিফোনে ওই সমাবেশে যেতে নিষেধ করেছেন। তার কথায় আমি যাইনি। কিন্তু শুক্রবার তিনজন এমপির উপস্থিতিতে নৌকার প্রার্থীর প্রচার করা হয়েছে। সেখানে বিজয় দিবসের আলোচনার বদলে প্রতীক ও প্রার্থীর প্রচার হয়েছে। তৈমূর বলেন, নির্বাচন কমিশন বোবা ও অন্ধ হয়ে পড়লে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। আমি পুলিশ প্রশাসন, জেলা প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনকে বলতে চাই- আপনাদের ভাবমূর্তি শূন্যের কোঠায়। আপনারা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করে নির্বাচনটা সুষ্ঠু করার চেষ্টা করুন। এ নির্বাচনে কোনো অনৈতিক কার্যকলাপ নারায়ণগঞ্জবাসী সহ্য করবে না। সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে উঠান বৈঠকে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি মনিরুল ইসলাম রবি, নারায়ণগঞ্জ মহানগর মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক নারী কাউন্সিলর আয়েশা আক্তার দীনা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেন খোকন, যুবদল নেতা সাগর প্রধান প্রমুখ।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply