Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ভারতের উদ্বেগ বাড়াচ্ছে সংক্রমণের হার ও মৃত্যু




বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতিদিন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলেছে ভারতে। আগে এত দ্রুত করোনার সংক্রমণ বাড়তে দেখা যায়নি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অতি সংক্রামক ওমিক্রনের কারণেই বিপর্যয়ে পড়েছে বিশ্ব। গত কিছুদিন শনাক্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও আজ সামান্য কমেছে ভারতের দৈনিক করোনা শনাক্তের সংখ্যা। তবে এখনো দৈনিক সংক্রমণ তিন লাখের উপরই থাকছে। বেড়েছে দৈনিক সংক্রমণের হার, বেড়েছে মৃত্যুও। রোববার (২৩ জানুয়ারি) সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দেওয়া করোনা বুলেটিন অনুযায়ী, ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখ ৩৩ হাজার ৫৩৩ জন, যা শনিবার ছিল তিন লাখ ৩৭ হাজার ৭০৪ জন। তবে বেড়েছে দৈনিক সংক্রমণের হার। শনিবার যা ছিল ১৭ দশমিক ২২ শতাংশ, রোববার তা কিছুটা বেড়ে হয়েছে ১৭ দশমিক ৭৮ শতাংশ। এর ফলে দেশটিতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল তিন কোটি ৯১ লাখ। ভারতে এখনো করোনা আক্রান্তের হিসেবে প্রথম স্থানে মহারাষ্ট্র। সেখানে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৬ হাজার ৩৯৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৪৮ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় পুরো ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫২৫ জনের। শনিবার তা ছিল ৪৮৮ জন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দেওয়া দৈনিক করোনা বুলেটিন অনুযায়ী, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭১ লাখের বেশি করোনা টিকাকরণ হয়েছে। এর ফলে ভারতে মোট ১৬১ কোটি ৯২ লাখ টিকা দেওয়া হলো। আরও পড়ুন: দেশে করোনা শনাক্ত কমেছে, বেড়েছে মৃত্যু এদিকে রোববার (২৩ জানুয়ারি) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৩৫৬ জনের। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ লাখ ৯৫ হাজার ৯৯৩ জন। এর আগে শনিবার (২২ জানুয়ারি) মৃত্যু হয়েছিল ৯ হাজার ৩৪ জনের। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ৩৬ লাখ ৩২ হাজার ৬৬১ জন, যা করোনার ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। ফলে করোনার ইতিহাসে সর্বোচ্চ আক্রান্তের পরের দিন মৃত্যু ও আক্রান্ত দুটোই কিছুটা কমেছে। করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশ সময় রোববার (২৩ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪ কোটি ৯৮ লাখ ২৩ হাজার ৬৭৮ জন এবং মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৬ লাখ ১০ হাজার ১৩৬ জনে। আর সুস্থ হয়েছেন ২৭ কোটি ৮১ লাখ ৪২ হাজার ২৮৫ জন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply