Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের আলোচনায় বসতে শিক্ষামন্ত্রীর আহ্বান




সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীদের আন্দোলন নিয়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের আলোচনায় বসতে শিক্ষামন্ত্রীর আহ্বান চলমান সংকট সমাধানে শনিবার (২২ জানুয়ারি) সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষক প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠকে শেষে এ আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী। ডা. দীপু মনি বলেন, শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসুক আমরা সেটা চাই। আলোচনাই সমস্যা সমাধানের সবচেয়ে ভালো পন্থা। আমি আলোচনার জন্য প্রস্তুত, শিক্ষকদের সঙ্গে অনশনকারীরা কথা বলতে পারছেন না বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আরও পড়ুন: কাফনের কাপড় পরে শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের মিছিল শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলনে ‘সন্দেহ’ পোষণ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা পরিষ্কার না এই আন্দোলনে আরও কেউ জড়িত কি না, তাদের ইন্ধনে কেউ কলকাঠি নাড়ছে কি না? তবে ওইদিনের ঘটনা তুলে ধরে তিনি বলেন, পুলিশি অ্যাকশনটা দুঃখজনক, তেমনি শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করাও দুঃখজনক। এদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিক্ষামন্ত্রীর বাসভবনে এ বৈঠক শুরু হয় বলে জানান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের। শিক্ষকদের প্রতিনিধি দলের মধ্যে ছিলেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. তুলসী কুমার দাস, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোহাম্মদ মুহিবুল আলম, ফিজিক্যাল সায়েন্সেস অনুষদেন ডিন ড. মো. রাশেদ তালুকদার, অ্যাপ্লায়েড সায়েন্সেস অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আরিফুল ইসলাম ও ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. খায়রুল ইসলাম রুবেল। এদিকে আন্দোলনকারী নেতৃবৃন্দ জানিয়েছে, উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অনশনকারী ২৪ জন শিক্ষার্থীর ১৭ জনকে সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আরও পড়ুন: ‘জাবির মেয়েদের কেউ বিয়ে করতে চায় না’ এছাড়া সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে কাফনের কাপড় পরে মৌন মিছিল কর্মসূচি পালন করেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। শনিবার (২২ জানুয়ারি) আন্দোলনের দশম দিনে বেলা ৩টার দিকে বিশ্ববিবিদ্যালয় এলাকায় এই মৌন মিছিল কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়। মৌন মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্ত্বর থেকে শুরু হয়। পরবর্তীতে চেতনা ৭১ প্রদক্ষিণ করে গোলচত্ত্বরে এসে শেষ হয়। মৌন মিছিলে প্রতীকী লাশ হিসেবে এক আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীকে দেখা যায়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply