Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » করোনা আক্রান্ত ক্রুসহ টোঙ্গায় নোঙ্গর করল অস্ট্রেলিয়ার ত্রাণবাহী জাহাজ




করোনা আক্রান্ত ক্রুসহ টোঙ্গায় নোঙ্গর করল অস্ট্রেলিয়ার ত্রাণবাহী জাহাজ

অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষা বিভাগের দেয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে টোঙ্গায় ত্রাণবাহী জাহাজ এইচএমএএস অ্যাডেলেইডে উঠছেন সেনা সদস্যরা। (জানুয়ারি ২৫, ২০২২। ছবি- অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষা বিভাগ/ এপি) সুনামি বিধ্বস্ত টোঙ্গায় বুধবার (২৬ জানুয়ারি) নোঙর করেছে অস্ট্রেলিয়ার ত্রাণবাহী জাহাজ এইচএমএএস অ্যাডেলেইড। কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্যমতে ত্রাণসামগ্রী নামানোর কাজে সহযোগিতাকারী ক্রুদের বেশ কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। মঙ্গলবার জাহাজটির প্রায় দুই ডজন ক্রুর করোনা ধরা পড়ে বলে জানা যায়। এর মাধ্যমে গত ১৫ জানুয়ারি আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণ থেকে সংঘটিত সুনামিতে বিধ্বস্ত প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশটিতে করোনার বিস্তার ঘটতে পারে বলে আশংকা করছেন অনেকে। অতিমারি শুরু হওয়ার পর থেকে টোঙ্গায় এখন পর্যন্ত একজন করোনা রোগী সনাক্তের খবর পাওয়া গেছে। ভয়েস অফ আমেরিকার তথ্য অনুযায়ী বিশ্বে যে কয়েকটি দেশ সম্পূর্ণ করোনা মুক্ত হতে পেরেছে তার মধ্যে টোঙ্গা একটি। এ ছাড়া দেশটির ৬১ শতাংশ লোকের ভ্যাকসিন সম্পন্ন হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার সরকার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ২৭ হাজার ৫০০ মেট্রিক টনের জাহাজটি ৩ হাজার ৩০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে ব্রিসবেন থেকে টোঙ্গায় পৌঁছেছে এবং এর ক্রুরা সংক্রমণ এড়াতে স্থানীয় জনগণদের সঙ্গে সরাসরি সংস্পর্শ ছাড়াই ত্রাণ বিতরণ করবে। “আমরা টোঙ্গা সরকারের ত্রাণবাহী জাহাজটিকে তীরে ভিড়তে দেওয়া এবং ত্রাণ ও চিকিৎসাসামগ্রীর সরবরাহ খালাস করতে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাই। জাহাজের ক্রুরা কোনো রকম শারীরিক সংস্পর্শ ছাড়াই এসব ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছেন”। যেহেতু দেশটিতে খাবার পানির সরবরাহ পুনস্থাপন করা অতীব জরুরি, অস্ট্রেলিয়ার ত্রাণবাহী জাহাজটি একটি ডিস্যালিনেশন প্ল্যান্ট নিয়ে এসেছে। জাহাজটিতে হেলিকপ্টার এবং প্রকৌশল সরঞ্জমাও রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার সরকার জানিয়েছে, ত্রাণসামগ্রীর পাশাপাশি দেশটি বিদ্যুৎ এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা পুনর্গঠনের কাজেও সাহায্য করবে। টোঙ্গায় বিদেশি নাগরিকদের প্রবেশের পর তিন সপ্তাহ পর্যন্ত কোয়ারান্টাইনে থাকার বিধি চালু রয়েছে। এর ফলে সুনামি বিধ্বস্ত দেশটিতে বিদেশি সাহায্য প্রক্রিয়া ব্যাহত হচ্ছে। এ ছাড়া কোভিড বিধি মোতাবেক স্থানীয় জনগণের সঙ্গে কোনো রকম শারীরিক সংস্পর্শ ছাড়াই সকল আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সরবরাহ করতে হবে। টোঙ্গা কর্তৃপক্ষ আশঙ্কা করছে, বিদেশি সাহায্যসামগ্রীর মাধ্যমে কোভিড সংক্রমণ ঘটলে সুনামির থেকে ভয়াবহ বিপর্যয় আসতে পারে। সুনামিতে মাত্র তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এইচএমএএস অ্যাডেলেইড টোঙ্গায় অস্ট্রেলিয়া থেকে আগত দ্বিতীয় ত্রাণবাহী জাহাজ। এর আগে একজন ক্রু করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় সি-১৭ গ্লোবমাস্টার নামের একটি সামরিক বিমান মাঝপথে অস্ট্রেলিয়ায় ফিরে যায়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply