Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » সিলেটের শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে অনলাইনে কথা বলতে চান




সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বর এলাকায় মোমবাতি প্রজ্জলন কর্মসূচির আয়োজন করে। সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বর এলাকায় মোমবাতি প্রজ্জলন কর্মসূচির আয়োজন করে। সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সঙ্গে অনলাইন প্ল্যাটফর্মে কথা বলতে চান। শিক্ষামন্ত্রীর আলোচনার প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে শনিবার (জানুয়ারি) রাতে আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে এই বিষয়টি গণমাধ্যমে জানানো হয়। আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে বলা হয়, আমরা শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় বসতে চাই। এ ক্ষেত্রে অনলাইনে প্ল্যাটফর্মে আমরা বসতে চাই। এ ছাড়াও শিক্ষামন্ত্রী সরাসরি সিলেট না এলেও মন্ত্রীর প্রতিনিধি এলে তাদের সঙ্গে বসতে রাজি আছি। এ সময় তাদের পক্ষ থেকে উপাচার্যের পদত্যাগের বিষয়ে অনড় থাকার সিদ্ধান্তের কথা উল্লেখ করা হয়। টানা ১০ দিনের আন্দোলনে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে এদিন কাফনের কাপড় পরে মৌন মিছিল কর্মসূচি পালন করে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়াও রাত ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বর এলাকায় মোমবাতি প্রজ্জলন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এ ছাড়া রাত ৮টা থেকে অনশন কর্মসূচিকে শিক্ষার্থীদের গণঅনশন কর্মসূচি হিসেবে পালন করা হবে বলে জানান আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা। এর আগে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) চলমান আন্দোলন প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, “আলোচনার মাধ্যমেই সব সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। আমরা চাই শিক্ষার্থীরা অনশন থেকে সরে এসে আলোচনায় বসুক। তারা চাইলে অনশনরত অবস্থাতেও আলোচনায় বসতে পারেন। আলোচনাই একমাত্র সমস্যা সমাধানের উপায়।” শাবিপ্রবির চলমান সংকট নিরসনে শনিবার সন্ধ্যায় শিক্ষামন্ত্রীর বাসভবনে শাবিপ্রবির শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকের পর শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এসব কথা বলেছেন। তিনি বলেন, “শিক্ষার্থীদের জন্য সবসময় দ্বার খোলা রয়েছে। তারা যখন চাইবেন তখন ই আলোচনা হবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে পারিবারিক কাজের কারণে যেতে পারছি না। তবে প্রয়োজন হলে আমাদের প্রতিনিধিদল সেখানে যেতে পারেন।” তিনি বলেন, “আমরা অনশনরত শিক্ষার্থীদের খোঁজ-খবর নিচ্ছি, আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যখনই বসতে চায় তখনই যাবে প্রতিনিধি দল।” দীপু মনি বলেন, “শাবিতে পুলিশি আচরণ (অ্যাকশন) দুঃখজনক। কিন্তু শিক্ষকদেরও লাঞ্ছিত করা হয়েছে। দুটোই অনভিপ্রেত।” বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহ ও শাবিপ্রবির শিক্ষক সমিতির সভাপতি তুলসী সাহার নেতৃত্বে পাঁচ শিক্ষক এসময় উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের নেতারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply