Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিচার শুরুর তারিখ ঘোষণা




মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিচার শুরুর তারিখ ঘোষণা

২১ ফেব্রুয়ারি হেগের আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচারের শুনানি ফের শুরু হবে। শুনানিতে অংশ নেবে মিয়ানমারের জান্তা সরকার। জাতিগত নিধনের নামে ২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা শুরু করে মিয়ানমার সরকার। সংখ্যালঘু এই মুসলমানরা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশসহ আশপাশের বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নেন। প্রায় ৭ লাখ মানুষ আশ্রয় নেন বাংলাদেশে। এরই পরিপেক্ষিতে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ওআইসির পক্ষে গাম্বিয়া ২০১৯ সালে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে গণহত্যার মামলাটি করে। আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলার ভার্চুয়াল শুনানিতে অংশ ফের নেবে মিয়ানমারের জান্তা সরকার। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে মামলার প্রাথমিক শুনানির পর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে মিয়ানমারের জন্য একটি আদেশ জারি করেন হেগের আদালত। আদেশে চার মাসের মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। সে সময় মামলার গণশুনানিতে মিয়ানমারের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন দেশটির সাবেক স্টেট কাউন্সিলর অং সান সুচি। রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি। আরও পড়ুন: হিজাব পরে কলেজে ঢুকতে বাধা দেওয়ায় চাকরি ছাড়লেন অধ্যাপক জাতিসংঘ সদর দফতরে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের কোনো অবস্থান না থাকলেও জাতিসংঘের কয়েকটি সংস্থা জান্তা সরকারের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানায়। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ক্রেডেনশিয়াল কমিটি সু চির সরকারের আমলে জাতিসংঘে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত কিয়াও মো তুনকে তার পদে বহাল রাখে। এ সপ্তাহের শুরুতে মিয়ানমারের জাতীয় ঐক্য সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, কিয়াও মো তুন মিয়ানমারের পক্ষে আদালতের সঙ্গে যুক্ত থাকার জন্য একমাত্র অনুমোদিত ব্যক্তি। অবশ্য মিয়ানমারের জনগণ হেগের আদালতে জান্তা সরকারের প্রতিনিধিত্ব মেনে নিতে চায় না। তারা বলছে, এর মাধ্যমে আইনি ভিত্তি ছাড়াই আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়ে যেতে পারে জান্তা সরকার।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply