Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » অমর একুশে বই মেলায় বাড়ছে লেখক-পাঠক-দর্শনার্থীদের পদচারণা।




অমর একুশে বই মেলায় বাড়ছে লেখক-পাঠক-দর্শনার্থীদের পদচারণা। জমে উঠেছে বাঙ্গালির প্রাণের মেলা। সমকালীন সাহিত্যকর্ম ছাড়াও পাঠকের পছন্দের তালিকায় চিরায়ত সাহিত্যের নানা বই। লেখকরা বলছেন, নতুন সাহিত্যিকদের মোকাবেলা করতে হচ্ছে চ্যালেঞ্জ। প্রাণের স্পন্দনে জেগে উঠেছে বাঙালিয়ানা। এ যেন চিরায়ত সেই স্রোতের নদী, মিলেছে সোহরাওয়ার্দী প্রাঙ্গণে। বইমেলার পঞ্চমদিনে নতুন বইয়ের ঘ্রাণে মাতোয়ারা সব বয়সী মানুষ। করোনাদুর্যোগেও বইপ্রেমিদের এই মিলনমেলার অংশ ক্ষুদে পাঠকও। বইয়ের সাথে প্রেম আর পাঠের মধ্যে দিয়ে খুঁজে চলেছেন পথ। কী সন্ধানে আছেন এই পাঠক! ক্ষুদে এই পাঠক জানান, বইটা আমার কাছে ভীষণ ভালো লেগেছে, এতে শিক্ষণীয় কিছু জিনিসও রয়েছে।" সমকালীন সাহিত্য ছাড়াও মুক্তবুদ্ধি, ভিন্নমত আর অনুবাদের দিকে ঝোঁক পাঠকের। আছে শিশুদের বইয়ের চাহিদাও। "বাচ্চাদের হরর কিংবা ফ্যান্টাসি বই পছন্দ, হুমায়ূন আহমেদের বইও পছন্দ।" বলেন একজন বইপ্রেমী। প্রিয়জনদের জন্য বই বাছাইয়েও মনোযোগী কেউ কেউ। একজন জানান, মা-বাবাকে ভালোবেসে আমরা ছেলেরা কী করতে পারি, এই নিয়েই বই খুঁছিলাম।" আরেক পাঠক বলেন, "নতুন পুরোনো সব ধরনের লেখকের বইই পড়ি, ক্ল্যাসিক বই গুলোও পড়া হয়।" দর্শনার্থীদের সমাগমে আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন প্রকাশনী সংশ্লিষ্টরা। একজন বলেন, "আমি আশাবাদী যে এবারে গতবারের চেয়ে ভালো বিক্রি হবে।" তবে বইমেলার প্রবণতা নিয়ে খানিক দ্বি-মত কবি অসীম সাহার। শুধু মেলা নয়; বইয়ের চাহিদা ও বাজার তৈরি নিয়েও কাজ করার তাগিদ তার। তিনি বলেন, "সবচেয়ে বিখ্যাত কবিদের বই বিক্রি কমে যাচ্ছে, তাহলে কি আমরা বিপরীত দিকে যাত্রা শুরু করেছি?" সময় বাড়ালে বইমেলা আরও প্রাণবন্ত হবে লোকসান কাটিয়ে আবারও এগিয়ে যাবে লেখক-প্রকাশকরা- এমনই আশাবাদ তাদের।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply