Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » সাকিবকে ছাড়াই দক্ষিণ আফ্রিকার পথে টাইগাররা




তিন ওয়ানডে ও দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশ্যে দেশ ছেড়েছে বাংলাদেশ দলের একাংশ। এবারে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবকে ছাড়াই তিন ভাগে দক্ষিণ আফ্রিকা যাচ্ছেন টাইগাররা। শুক্রবার সকাল ১১টায় প্রথম বহরে গেছেন ৮ জন। রাত ১১টায় যাবে দ্বিতীয় বহর। আর শেষ বহরে টেস্ট দলের সদস্যরা যাবেন শনিবার সকাল ১১টায়। এই তিন বহরের কোনো একটিতেই থাকতে পারতেন সাকিব আল হাসানও। টেস্ট-ওয়ানডে, দুই সংস্করণেই তাকে রেখে ঘোষণা করা হয়েছিল বাংলাদেশ দল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তিনি যাচ্ছেন না! দীর্ঘ সাড়ে চার বছর পর দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাচ্ছে টিম বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে বাংলাদেশ দলের ফর্ম ভালো থাকায় প্রোটিয়াদের বিপক্ষে দারুণ কিছু করার পরিকল্পনাই করেছেন নির্বাচক প্যানেলের অন্যতম সদস্য হাবিবুল বাশার সুমন। দক্ষিণ আফ্রিকার পথে রওনা হওয়ার আগে জাতীয় দলের এই নির্বাচক বলে গেলেন, এই দল নিয়েই দক্ষিণ আফ্রিকায় জয় খরা কাটানোর বিশ্বাস আছে তার। এদিকে, দলের সেরা ক্রিকেটারকে না পাওয়াটা অবশ্য সেই বিশ্বাসে চিড় ধরাচ্ছে নিশ্চিতভাবেই। কেননা, সাকিব একইসঙ্গে বিশেষজ্ঞ ব্যাটার এবং বোলারও। তাইতো তাকে ছাড়া একাদশের ভারসাম্যও নড়ে যায় অনেকটাই। সেই বাস্তবতা অবশ্য জানেন হাবিবুল বাশারও। বিমানবন্দরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, “সাকিবকে অবশ্যই মিস করব। আমাদের খুব গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড়। সাকিব দলে থাকলে দলের ভারসাম্য অনেক ভালো থাকে। লম্বা সময় ধরে সে আমাদের সেরা পারফরমারদের একজন। বিশ্ব ক্রিকেটে তার পাফরম্যান্স আমরা দেখেছি। তবে এখন আর এটা নিয়ে ভাবছি না। আমাদের যে দলটা আছে, ওদের নিয়েই ভাবছি। আমাদের বিশ্বাস, এই দলটা নিয়েই আমরা ভালো পারফর্ম করতে পারব।” সান্ত্বনার বাণী শুনিয়ে জাতীয় দলের এই নির্বাচক বলেন, “সব সময় আপনি সেরা খেলোয়াড়কে পাবেন না। তার জায়গায় যে খেলবেন, সে-ই এখন সেরা খেলোয়াড়। তাকে নিয়েই চেষ্টা করতে হবে। এর আগেও সেরা খেলোয়াড়দের ছাড়া আমাদের খেলতে হয়েছে এবং পারফর্মও করেছি। আমার বিশ্বাস, যারা দলে আছেন, তারা ভালো করতে পারবেন।” এদিকে, এবারের সফরে তিন ভাগে ভাগ হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। সকালে প্রথম বহরে গেছেন নাসুম আহমেদ, নাজমুল হোসাইন শান্ত, ইয়াসির আলী চৌধুরী ও এবাদত হোসাইন। এছাড়াও রয়েছেন নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন, টিম ম্যানেজার নাফিস ইকবাল, ফিজিও বায়েজিদ ইসলাম ও টিম অ্যানালিস্ট নাসির আহমেদ নাসু। ওয়ানডে সিরিজের আগে অবশ্য খুব বেশি সময় পাচ্ছে না দল। ওয়ানডে দলের বেশিরভাগ ক্রিকেটারই যাবেন শুক্রবার রাতের ফ্লাইটে। শনিবার পৌঁছে রোববার বিশ্রাম। আগামী শুক্রবার ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে ও অনুশীলনের জন্য সময় স্রেফ চার দিন। তবে গত কয়েক মাসের টানা খেলা ও ঠাসা সূচিতে কয়েকদিন আগে যাওয়ার বাস্তবতাও ছিল না। সুমন তাই বললেন, এই কদিনে যতটা সম্ভব প্রস্তুত হতে হবে প্রোটিয়া চ্যালেঞ্জের জন্য। আগামী ১৮, ২০ ও ২৩ মার্চ সিরিজের তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সেঞ্চুরিয়ন ও জোহানেসবার্গে। ওয়ানডে সিরিজ শেষে ৩০ মার্চ থেকে ১২ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। বাংলাদেশ ওয়ানডে দল: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, নাজমুল হোসাইন শান্ত, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসাইন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, ইবাদত হোসাইন, নাসুম আহমেদ, ইয়াসির আলী চৌধুরী, মাহমুদুল হাসান জয়, সৈয়দ খালেদ আহমেদ। বাংলাদেশ টেস্ট দল: মোমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসাইন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন দাস, ইয়াসির আলী চৌধুরি, তাইজুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ চৌধুরী, ইবাদত হোসাইন, শরিফুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, সাদমান ইসলাম, নুরুল হাসান সোহান।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply