Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » যান্ত্রিক ত্রুটি নয়, চীনের বিমান দুর্ঘটনা ছিল ইচ্ছাকৃত!




যান্ত্রিক ত্রুটি নয়, চীনের বিমান দুর্ঘটনা ছিল ইচ্ছাকৃত!

চীনের গুয়াংশির উঝোউ শহরের প্রত্যন্ত অঞ্চলে গত ২১ মার্চ বিধ্বস্ত হয় চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইনসের বোয়িং ৭৩৭ বিমান। ১২৩ যাত্রী ও ৯ জন ক্রু ছিলেন বিমানটিতে। এ ঘটনার ছয় দিন পর আরোহীরা সবাই নিহত হয়েছেন বলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয় চীনা কর্তৃপক্ষ। তবে যান্ত্রিক ত্রুটি নয়, ইচ্ছাকৃতভাবেই বিধ্বস্ত করানো হয়েছিল চীনের যাত্রীবাহী ওই বিমানটিকে। এমনটাই দাবি করছেন তদন্ত সংশ্লিষ্টরা। দুর্ঘটনার পর প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল, যান্ত্রিক ত্রুটির কারণেই এ দুর্ঘটনা। কিন্তু বিমানের একটি ব্ল্যাক বক্স খতিয়ে দেখার পর তদন্তকারীরা দাবি করছেন, কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে এ দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে। খবর রয়টার্স। আরও পড়ুন: চীনে বিমান বিধ্বস্তে ১৩২ আরোহীর সবাই নিহত এ ছাড়া মঙ্গলবার (১৭ মে) ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্ঘটনার আগে চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইনসের ওই বিমানের পাইলটদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল। কিন্তু তাদের কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি। বিমান থেকেও কোনো বিপৎসংকেত পাঠানো হয়নি। তদন্তকারীরা মনে করছেন, ককপিট কারও দখলে চলে গিয়েছিল। প্রায় ৩০ বছরের মধ্যে চীনের সবচেয়ে বড় বিমান দুর্ঘটনা ছিল এটি। পরে দুর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া ফ্লাইট ডেটা রেকর্ডারগুলো বিশ্লেষণের জন্য পাঠানো হয় যুক্তরাষ্ট্রে। সেগুলো বিশ্লেষণ করে জানা যায়, সম্ভবত একজন পাইলট অথবা অন্য কেউ জোর করে বিমানটির ককপিটে ঢুকেছিল এবং বিমানটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে প্রবল গতিতে মাটির দিকে নাক বরাবর নামিয়ে আনা হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্টেশন সেফটি বোর্ডের একটি সূত্র ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে জানায়, ককপিটে থাকা কারও মাধ্যমেই দুর্ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে। তবে এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমগুলোর কাছে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি দুর্ঘটনার কবলে পড়া ওই বিমানটির প্রস্তুতকারক সংস্থা বোয়িং এবং মার্কিন জাতীয় পরিবহন নিরাপত্তা বোর্ড (এনটিএসবি)। আরও পড়ুন: চীনে বিধ্বস্ত বিমান নিয়ে বাড়ছে রহস্য মন্তব্য করতে রাজি হয়নি তদন্তের নেতৃত্ব দেওয়া সংস্থা চীনের সিভিল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (সিএএসি)






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply