Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » বাটলারের সেঞ্চুরিতে ফাইনালে রাজস্থান




বাটলারের সেঞ্চুরিতে ফাইনালে রাজস্থান v

ইংলিশ ব্যাটার জস বাটলার বলতে গেলে রাজস্থান রয়্যালসকে একাই টেনে নিয়ে এসেছেন প্লে-অফ পর্যন্ত। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারেও করলেন অসাধারণ সেঞ্চুরি। যার ওপর ভর করে বিরাট কোহলি-ফ্যাফ ডু প্লেসির রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুকে উড়িয়ে ফাইনালে উঠে গেলো রাজস্থান। ১৫৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে জস বাটলার একাই করলেন ১০৬ রান। তার এই অসাধারণ সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ১১ বল হাতে রেখে রয়েল ব্যাঙ্গালুরুকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে রাজস্থান। এবারের আইপিএলে ইংলিশ ব্যাটার কী অসাধারণ ব্যাটিং করে যাচ্ছেন,একটু পরিসংখ্যানের দিকে তাকালেই তা বোঝা যায়। এবারের আইপিএলে একাই চারটি সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। ১৬ ম্যাচে ৫৮.৮৫ গড়ে রান করেছেন ৮২৪। স্ট্রাইক রেট ১৫১.৪৭। ৪টি সেঞ্চুরির সঙ্গে ৪টি হাফ সেঞ্চুরিও রয়েছে তার। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে এক ম্যাচে করেছিলেন ১১৬ রান। ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে খেললেন ১০৬ রানের অপরাজিত ইনিংস। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে খেলেছেন ১০৩ রানের ইনিংস এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে খেলেছেন ১০০ রানের ইনিংস। এবারের আইপিএলে এ পর্যন্ত ৮টি সেঞ্চুরি হয়েছে, এরমধ্যে চারটিই বাটলারের। ১৫৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামার পর জশস্বি জসওয়ালকে নিয়ে ৫.১ ওভারেই ৬১ রানের জুটি গড়ে তোলেন বাটলার। ১৩ বলে ২১ রান করে বিরাট কোহলির হাতে ক্যাচ দিয়ে জসওয়াল আউট হয়ে যান। এরপর অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসনকে নিয়ে ৫২ রানের জুটি গড়েন বাটলার। ২১ বলে ২৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন স্যামসন। দেবদূত পাডিক্কাল ১২ বলে ৯ রান করে আউট হয়ে যান। এরপর শিমরন হেটমায়ারকে নিয়ে জয়ের জন্য বাকি কাজটা সেরে ফেলেন বাটলার। ১৯তম ওভারের প্রথম বলে বিশাল এক ছক্কা মেরে রাজস্থানকে জয় এনে দেন ইংলিশ এই ব্যাটার। ৬০ বলে খেলা তার এই ইনিংসটি সাজানো ছিল ১০টি বাউন্ডারি এবং ৬টি বিশাল ছক্কায়। এর আগে আহমেদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রজত পাতিদারের ৫৮ রানের ওপর ভর করে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রান সংগ্রহ করে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। দলকে ফাইনালে তোলার ম্যাচে মাত্র ৭ রান করেই প্রসিধ কৃষ্ণার বলে সাজঘরের পথ ধরেছিলেন বিরাট কোহলি। কোহলি দ্রুত ফিরে গেলেও ফাফ ডু প্লেসি (২৭ বলে ২৫), রজত পতিদার (৪২ বলে ৫৮) এবং গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের (১৩ বলে ২৪) ইনিংসে ভর করে শুরুটা ভালোই করেছিল বেঙ্গালুরু। ইনিংসের প্রথম ১৩ ওভার থেকে ১০৭ রান তুলে নিয়েছিল তারা। তবে এরপর রাজস্থানের দুর্দান্ত ডেথ বোলিংয়ে বেঙ্গালুরুর আর কোনো ব্যাটার ক্রিজে থিতু হতে না পারায় শেষ ৭ ওভার থেকে দলটি মাত্র ৫০ রান তুলতে সমর্থ হয়। ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত জস বাটলার। ২০০৮ সালে প্রথম আইপিএলে ওয়ার্নের হাত ধরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল রাজস্থান। এর দীর্ঘ বছর পর এবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ রয়েছে দলটির।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply