Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » হতাশার ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের বড় হার




হতাশার ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের বড় হার হারের হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়ছেন সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস। ছবি : সংগৃহীত ম্যাচ বাঁচাতে উইকেটে টিকে থাকাই একমাত্র লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশের। লিটন দাস ও সাকিব আল হাসানের ব্যাটে প্রথম সেশনে যেন সেই আশাই দেখে বাংলাদেশ। কিন্তু দুই সেট ব্যাটার ফেরার সঙ্গে সঙ্গেই পাল্টে যায় ম্যাচের চিত্র। সাকিব আউট হওয়ার পর ৩০ মিনিটের মধ্যেই বাংলাদেশকে থামিয়ে দেয় শ্রীলঙ্কা। তাতে জয়ের জন্য সফরকারীদের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৯ রানের। মাত্র ৩ ওভারেই এই রান টপকে জয়ের হাসি হাসে দিমুথ করুনারত্নের দল।

আজ শুক্রবার ঢাকা টেস্টের শেষ দিনে বাংলাদেশকে ১০ উইকেটে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। এর আগে চট্টগ্রাম টেস্টে ড্র করে দুদল। আজ ঢাকা টেস্ট জিতে নিয়ে শিরোপা নিশ্চিত করেই সফর শেষ করল লঙ্কানরা। দলের জয়ে বল হাতে বড় ভূমিকা রাখেন অসিথা ফার্নান্দো। প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট পাওয়া ফার্নান্দো দ্বিতীয় ইনিংসে তুলে নেন ৬টি উইকেট। দুই ইনিংসে তাঁর শিকার ১০ উইকেট। এতে রেকর্ড বইয়েও নাম লেখান ফার্নান্দো। শ্রীলঙ্কার হয়ে পেস বোলিংয়ে ১০ উইকেট শিকারের কীর্তি আগে ছিল শুধু চামিন্দা ভাসের। ১৯৯৫ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নেপিয়ারে এক ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। এরপর ২০০১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিয়েছিলেন ১৪টি। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন ফার্নান্দো। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা টেস্টের চতুর্থ দিনের শেষ দিকে ব্যাট করতে নেমে ৩৪ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ১০৭ রানে পিছিয়ে থেকে আজ শেষ দিন শুরু করে মুমিনুল হকের দল। ম্যাচ বাঁচাতে হলে টিকে থাকাই ছিল একমাত্র উপায়। কিন্তু সেই লক্ষ্যে ব্যর্থ বাংলাদেশ। দিনের প্রথম ঘণ্টায় মুশফিকুর রহিমকে হারায় বাংলাদেশ। কাসুন রাজিথার বলে বোল্ড হয়ে বিদায় নেন মুশফিক। ৩৯ বলে ২৩ রান করে আউট হন প্রথম ইনিংসে সেঞ্চুরি করা মুশফিক। এরপর জুটি গড়েন সাকিব ও লিটন দাস। এই জুটিতেই আশা দেখে বাংলাদেশ। এই জুটিতে চড়ে প্রথম সেশনে ইনিংস ব্যবধানে হার এড়ায় বাংলাদেশ। কিন্তু এই জুটি ফেরার সঙ্গে সঙ্গেই শেষ হয়ে যায় আশা। দিনের দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই ৫২ রান করে আউট হন লিটন। এর কিছুক্ষণ পর ভাঙে সাকিবের প্রতিরোধ। ৭২ বলে ৫৮ রান করে আউট হন সাকিব। দুই তারকা ফেরার কিছুক্ষণের মধ্যেই ১৬৯ রানে শেষ হয় বাংলাদেশ। বাংলাদেশকে আউট করা পর জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৯ রানের। তিন ওভারেই এই রান তুলে নিয়ে জয়ের দেখা পেয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। এর আগে প্রথম ইনিংসে ৫০৬ রানে থামে শ্রীলঙ্কা। প্রথম সেশনে ১৪১ রানের লিড পায় লঙ্কানরা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা ম্যাথুজ ৩৪২ বলে খেলেছেন ১৪৫ রানের ইনিংস। প্রথম ইনিংসে বল হাতে বাংলাদেশের হয়ে উজ্জ্বলতা ছড়িয়েছেন সাকিব ও ইবাদত। ৯৬ রান দিয়ে ৫টি উইকেট নিয়েছেন সাকিব। এই নিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৯তম বার এক ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। সাকিবের সঙ্গে ১৪৮ রান দিয়ে চার উইকেট নেন ইবাদত। তার আগে লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিমের লড়াইয়ের পর প্রথম ইনিংসে ৩৬৫ রান করে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করা মুশফিক খেলেছেন ১৭৫ রানের ইনিংস। এ ছাড়া লিটন খেলেছেন ১৪১ রানের ইনিংস। সংক্ষিপ্ত স্কোর বাংলাদেশন : ৩৬৫ ও ৫৫.৩ ওভারে ১৬৯/১০ (তামিম ০, জয় ১৫, শান্ত ২, মুমিনুল ০, মুশফিক ২৩, লিটন ৫২, সাকিব ৫৮, সৈকত ৯, তাইজুল ১, ইবাদত ০, খালেদ ০ ; রাজিথা ১২-৫-৪০-২, ফার্নান্দো ১৭.৩-৫.৫১.৬)। শ্রীলঙ্কা : ৫০৬ ও ৩ ওভারে ২৯/০ (ওসাদা ২১, করুনারত্নে ৭, তাইজুল ১-০-১৬-০, সাকিব ১-০-৭-০, ইবাদত ১-০-৫-০)। ফল : শ্রীলঙ্কা ১০ উইকেটে জয়ী






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply