Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » IPL Final 2022, GT vs RR: Rajasthan-কে সাত উইকেটে হারিয়ে আবির্ভাবেই বিজয়ী Hardik-এর Gujarat Titans




IPL Final 2022, GT vs RR: Rajasthan-কে সাত উইকেটে হারিয়ে আবির্ভাবেই বিজয়ী Hardik-এর Gujarat Titans টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত বুমেরাং হয়ে গেল। বাইশ গজের চরিত্র বুঝতে পারেননি সঞ্জু স্যামসন। আর সেই খেসারত তাঁর রাজস্থান রয়্যালসকে ফাইনালে হেরে দিতে হল। নিজস্ব প্রতিবেদন: টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার

সিদ্ধান্ত বুমেরাং হয়ে গেল। বাইশ গজের চরিত্র বুঝতে পারেননি সঞ্জু স্যামসন (Sanju Samson)। আর সেই খেসারত তাঁর রাজস্থান রয়্যালসকে (Rajasthan Royals) ফাইনালে হেরে দিতে হল। কম রান হাতে নিয়ে একটা সময় পর্যন্ত লড়াই করা যায়। তবে জেতা যায় না। সেটা সঞ্জুর দলের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে, আবির্ভাবেই ড্যাং ড্যাং করে আইপিএল (IPL 2022) জিতে নিল হার্দিক পান্ডিয়ার (Hardik Pandya) গুজরাত টাইটান্স (Gujarat Titans)। শুরুটা ভাল হয়নি গুজরাতের। ঋদ্ধিমান সাহা (Wriddhiman Saha) মাত্র ৭ রানে আউট হন। ম্যাথু ওয়েড (Matthew Wade) বেশি রান করতে পারেননি। তবে শুভমন গিলকে (Subhpam Gill) সঙ্গে নিয়ে লড়াই শুরু করে দেন হার্দিক। তৃতীয় উইকেটে ৪৬ রানের জুটি ম্যাচের তফাৎ গড়ে দিয়েছিল। বাকি কাজটা সারলেন 'কিলার' ডেভিড মিলার (David Miller) ও কেকেআর (KKR) থেকে ব্রাত্য হয়ে যাওয়া শুভমন। তিনিই ছয় মেরে দলকে প্রথম আইপিএল এনে দিলেন। প্রথমবার আইপিএল ফাইনালের মতো মেগা ম্যাচ খেলতে নামলেও গুজরাত দলকে দেখে সেটা বোঝার উপায় ছিল না। আর তাদের প্রত্যয়ী মানসিকতার প্রতিফলন দেখা গেল বাইশ গজের যুদ্ধে। ফাইনালের মঞ্চে বল হাতে দাপট দেখালেন হার্দিক, মহম্মদ শামি (Mohammed Shami), রশিদ খান (Rashid Khan)। বোলিং ও দুটি গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচ নিয়ে যোগ্য সঙ্গত দিলেন তরুণ সাঁই কিশোর। ফলে প্রথমে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১৩০ রানে আটকে গেল রাজস্থান। Hardik Pandya ইডেন গার্ডেন্সে প্রথম কোলিফায়ারের পর এলিমেনটরের ম্যাচেও দাপট দেখিয়েছিলেন জস বাটলার (Jos Buttler)। যিনি চলতি আইপিএল-এ (IPL 2022) অনবদ্য কীর্তি গড়েছেন। চারটি শতরান করেছেন। ডেভিড ওয়ার্নারের (David Warner) রেকর্ড ভেঙে আইপিএলে সর্বকালের সবচেয়ে বেশি ব্যক্তিগত রানের নজির তাঁর নামের পাশে। রবিবার সেই বাটলারই রাজস্থানের সর্বোচ্চ স্কোরার। কিন্তু তাঁর নামের পাশে লেখা ছিল মাত্র ৩৯ রান। সেটা রাজস্থানের সাজঘরে স্বস্তি দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট ছিল না। হার্দিকের বোলিং নিয়ে গত বছর থেকে অনেক লেখালেখি হয়েছে। পিঠের চোট, অস্ত্রোপচার, সব মিলিয়ে হার্দিক বল করাই ছেড়ে দিয়েছিলেন। এমনকী, জাতীয় দলের হয়ে তিনি বল না করায় প্রচুর প্রশ্ন উঠেছিল। বাদ পড়েছিলেন দল থেকেও। এ বার ফাইনালের আগেও তাঁকে তেমন হাত ঘোরাতে দেখা যায়নি। তবে বড় ম্যাচে বল হাতে তাঁর পুরনো ঝলক দেখা গেল। মাত্র ১৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নিলেন গুজরাতের অধিনায়ক। শিকারের তালিকায় বিপক্ষের সেরা তিন ব্যাটার। বাটলার, সঞ্জু স্যামসন ও শিমরন হেটমায়ার। হার্দিককে যোগ্য সঙ্গত করলেন শামি, রশিদ খান ও সাঁই কিশোর। মাত্র ১৮ রান খরচ করে ১ উইকেট তুলে নিলেন রশিদ। সাঁই নিলেন ২০ রানে ২ উইকেট।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply