Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » কুড়িগ্রামে অর্ধশত গ্রাম প্লাবিত,পানিবন্দি ২৫ হাজার মানুষ




কুড়িগ্রামে অর্ধশত গ্রাম প্লাবিত,পানিবন্দি ২৫ হাজার মানুষ

বৃষ্টি আর উজানের ঢলে ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, দুধকুমার ও তিস্তাসহ ১৬ নদ-নদীতে পানি বাড়তে শুরু করেছে। শুক্রবার (১৭ জুন) সকালে বিপৎসীমা অতিক্রম করে ব্রহ্মপুত্রের চিলমারী পয়েন্টে ৫ সেন্টিমিটার, ধরলা নদীর ফেরিঘাট পয়েন্ট বিপৎসীমা ৯ সেন্টিমিটার এবং দুধকুমারের পাটেশ্বরী পয়েন্টে ৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। এর ফলে নদ-নদীগুলোর অববাহিকার ফুলবাড়ী সদর, উলিপুর উপজেলার ১৭টি ইউনিয়নের চর ও দ্বীপচরসহ নিম্নাঞ্চলের অর্ধশত গ্রাম প্লাবিত হওয়ায় ২৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল গফুর জানান, ব্রহ্মপুত্র, দুধকুমার ও গঙ্গাধর নদী বেষ্টিত তার ইউনিয়নের পোড়ারচর, চর যাত্রাপুর, পার্বতীপুর, ঝুনকারচর, ভগবতীপুর, কালির আলগা, চিড়াখাওয়া ও চর রসুলপুরসহ ১৪টি গ্রাম প্লাবিত হওয়ায় ২ হাজারের মতো মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। একই উপজেলার ঘোগাদহ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক জানান, তার ইউনিয়নের খামার ব্রহ্মতর, আরাজী কুমোরপুর, চর কুমারেরবস, চর রাউলিয়া দোবারিরখোলা ভৈষেরকুটি, সরকারপাড়া গ্রাম, খারুয়ারপাড়, সবুজপাড়া ও কাজলদহ গ্রামে প্রায় ৩ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। আরও পড়ুন: ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে ৩-৪ দিন তিনি আরও জানান, বাড়িঘরে পানি উঠেছে। ফলে কেউ ঘরে মাচা তৈরি করে আর কেউবা নৌকায় নানান দুর্ভোগের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল হাসান জানান, তার উপজেলার ভোগডাঙ্গা, যাত্রাপুর, ঘোগাদহ, পাছগাছি ও হলোখানা ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। প্লাবিত গ্রামগুলোর দেড় হাজার পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী সহায়তা দেয়ার জন্য তালিকা তৈরিসহ অন্যান্য প্রস্তুতি চলছে। এ প্রসঙ্গে কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, পানিবৃদ্ধি অব্যাহত আছে। এ অবস্থায় বাঁধসহ বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ পয়েন্ট নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply