Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » প্রতিষ্ঠার দেড় যুগ চালু হয়নি মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার রশিকপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়।




প্রতিষ্ঠার ১৮ বছরেও চালু হয়নি কোটি টাকার স্কুল!

প্রতিষ্ঠার ১৮ বছরেও চালু হয়নি মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার রশিকপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়। জমি নিয়ে মামলার জটিলতায় আটকে গেছে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম। কোটি টাকা ব্যায়ে তৈরি করা বিদ্যালয়টির রক্ষণাবেক্ষণও হচ্ছে না। একাডেমিক কার্যক্রম চালু না হওয়ায় নষ্ট হচ্ছে মূল্যবান জিনিসপত্র। ইতোমধ্যে জানালা, বৈদ্যুতিক পাখা, টেবিল চেয়ার, বেঞ্চসহ অনেক মালামাল চুরি হয়ে গেছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলা সংক্রান্ত জটিলতা নিরসন করে একাডেমিক কার্যক্রম চালু করার দাবি স্থানীয় শিক্ষাথী ও অভিভাবকদের। ২০০৩ খ্রিষ্টাব্দে সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় দেশের ৫৪টি জেলাতে পিছিয়ে পড়া গ্রামগুলোতে একটি করে মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়। এ প্রকল্পের আওতায় মুজিবনগর উপজেলার রশিকপুরে এক কোটি টাকা ব্যয়ে প্রায় সাড়ে তিনবিঘা জমির ওপর নির্মাণ করা হয় মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি। কিন্তু জমি জটিলতায় ১৮ বছরেও চালু হয়নি স্কুলটির একাডেমিক কার্যক্রম। শিক্ষা কার্যক্রম চালু না থাকায় রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে নষ্ট হচ্ছে মূল্যবান আসবাবপত্র। ভেঙে পড়েছে কাচেঁর জানালা। রাতের বেলায় মাদকসেবীদের আড্ডা বসে স্কুলে। বৈদুতিক ফ্যান, সুইজ, জানালার গ্রিলসহ অন্যান্য উপকরণ চুরি হয়ে গেছে। অথচ এ গ্রামে শিক্ষার্থীদের ভৈরব নদী পাড়ি দিয়ে পড়তে যেতে হয় কয়েক কিলোমিটার দুরের স্কুলে। ইতোপূর্বে ভৈবর নদীতে ডুবে কয়েকজন শিক্ষার্থীও মারা গেছে। স্কুলটির জন্য জমিদাতা আম্মাতন নেছা ে জানান, তৎকালিণ সময়ে এই জমির পরিবর্তে অন্য স্থানে ৫ বিঘা জমি কিংবা ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা দেয়ার কথা থাকলেও কোনটাই দেয়া হয়নি। এ কারণে তিনি মামলা করেছেন। এ মামলার কারণেই স্কুলটিতে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে না বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা ে জানান, জমি জটিলতা কাটিয়ে এ বিদ্যালয়টি চালু করা হলে এ এলাকায় শিক্ষার প্রসার ঘটবে। যদিও জটিলতা নিরসন করে স্কুলটি চালু করার আশ্বাস দিয়েছেন মেহেরপুরের জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বলেন, বিষয়টি খোঁজ খবর নিয়ে বিদ্যালয়টি চালু হয় সে ব্যবস্থা করা হবে। আর স্কুল চালুর জন্য আলোচনা করা হবে বলেআশ্বস্ত করেছেন মেহেরপুর জেলা প্রশাসক ড. মোহাম্মদ মুনসুর আলম খান। তিনি বলেন,যেহেতু জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আদালতে মামলা চলমান সেক্ষেত্রে বাদী ও কোর্টের পিপির সাথে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply