Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » চীনের সিচুয়ান প্রদেশে স্ত্রীকে পুড়িয়ে লাইভস্ট্রিমিং, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড




স্ত্রীর গায়ে পেট্রল ঢেলে পুড়িয়ে মারার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় লাইভস্ট্রিমিং করেন চীনের এক ব্যক্তি। এ অপরাধে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে দেশটি। চীনের সিচুয়ান প্রদেশে গত শনিবার ওই মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। খবর ডেইলি মেইলের। এক বিবৃতিতে চীনের সরকারি আইনজীবীরা জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি যে ধরনের অপরাধ করেছেন, তার জন্য সর্বোচ্চ শাস্তিই তার প্রাপ্য।

বিয়ের পর থেকেই তাং লু নামে ওই ব্যক্তি তার স্ত্রী হামোকে নির্যাতন করতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ২০২০ সালের জুনে তাদের আইনি বিচ্ছেদ হয়ে যায়। তার পর থেকে হামোকে ফের বিয়ের জন্য চাপ দিতে শুরু করে তাং। ৩০ বছর বয়সি হামো প্রতিবারই তাংকে ফিরিয়ে দেন। কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত হামো সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা বিষয়ে লাইভস্ট্রিমিং করতেন। প্রত্যাখ্যাত তাং ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে একদিন জোর করে হামোর বাড়িতে ঢুকে পড়ে। হামো সেসময়ে লাইভস্ট্রিমিং করছিলেন। স্ট্রিমিং-এর মধ্যেই তাং তার গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। গুরুতর জখম অবস্থায় হামোকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সপ্তাহ খানেক পরে তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় চীনসহ গোটা বিশ্বে ক্ষোভের ঝড় ওঠে। নারীদের নিরাপত্তা প্রশ্নে বিশ্বের সামনে মুখ পোড়ে চীনেরও। ২০০১ সাল পর্যন্ত চীনের আইনে পারিবারিক সহিংসতাকে বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য পর্যাপ্ত কারণ বলে গণ্য করা হত না। ২০১৫ সালে শারীরিক নির্যাতনের পাশাপাশি, মানসিক নির্যাতনও পারিবারিক সহিংসতা সংক্রান্ত আইনের আওতায় আসে। বহু ক্ষেত্রে অভিযোগ উঠেছে, নির্যাতিতাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ সরকার। হামোর মৃত্যুর পরে গ্রেফতার করা হয় তাংকে। গত বছর অক্টোবরে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয় আদালত। গত শনিবার তা কার্যকর করা হয়।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply