Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ফের বিক্ষোভকারীদের দখলে ইরাকের পার্লামেন্ট




ইরাকের শিয়া নেতা মুক্তাদা আল-সদরের সমর্থকরা শনিবার দেশটির পার্লামেন্ট দখল করে নিয়েছে বলে বার্তা সংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। বিক্ষোভকারীরা পার্লামেন্ট ভবন ছেড়ে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে বলে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। সদর সমর্থকরা হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজিং প্ল্যাটফর্মে সাংবাদিকদের এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে জানিয়েছে, বিক্ষোভকারীরা পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সেখানে অবস্থানের ঘোষণা দিয়েছে। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা আইএনএ এই তথ্য নিশ্চিত করেছে। শিয়া নেতা মুক্তাদা আল-সদরের প্রতিপক্ষকে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন দেওয়া নিয়ে এই বিক্ষোভের সূত্রপাত হয়। এর আগে বুধবার শত শত বিক্ষোভকারী কঠোর নিরাপত্তা বলয় ভেঙে দেশটির পার্লামেন্ট ভবনে ঢুকে পড়েন।পরে অবশ্য মুক্তাদা সদরের আহ্বানে বিক্ষোভকারীরা পার্লামেন্ট ভবন ত্যাগ করেন। ইরাকের পার্লামেন্ট ভবনটি রাজধানী বাগদাদের সুরক্ষিত গ্রিন জোনে অবস্থিত। এ জোনে ইরাক সরকারের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা রয়েছে। আছে বিভিন্ন দেশের দূতাবাস। গত বছর অক্টোবরে ইরাকে পার্লামেন্ট নির্বাচন হয়। তাতে ৩২৯ আসনের মধ্যে মুক্তাদা সদরের জোট ৭৩ আসনে বিজয়ী হয়। এর মধ্য দিয়ে পার্লামেন্টে তারা সবচেয়ে বড় অংশ হয়ে ওঠে। কিন্তু রাজনৈতিক অচলাবস্থার কারণে এই জোট ক্ষমতায় যেতে পারেনি। আল সুদানিকে মনোনয়ন দিয়েছে স্টেট অব ল নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী নুরী আল মালিকি। তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার আগে পার্লামেন্টকে প্রথমে একজন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করতে হবে। ইরাকের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মধ্যে চরম বিরোধ বিরাজ করছে। এ কারণে দেশটিতে ৯ মাসেও একটি নতুন সরকার গঠন করা যায়নি। এই অচলাবস্থার ধারাবাহিকতায় এখন দেশটিতে অস্থিরতা শুরু হলো। ইরাকে মার্কিন আগ্রাসনের জোর বিরোধিতাকারী হিসাবে পরিচিত সদর। অক্টোবরের নির্বাচনে তার জাতীয়তাবাদী স্যারুন মুভমেন্ট বিজয় দাবি করে। কিন্তু নির্বাচনের পর একটি নতুন জোট সরকার গঠন করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। কারণ সদর তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে কাজ করতে অস্বীকৃতি জানান। সদর ও তার সমর্থকরা প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হিসাবে মোহাম্মদ আল-সুদানির বিরোধিতা করছেন। কারণ, তাদের মতে আল-সুদানি ইরানের ঘনিষ্ঠ।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply