Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » ঈদ ঘিরে দেশজুড়ে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়িয়েছে র‍্যাব




ঈদকে কেন্দ্র করে দেশজুড়ে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করেছে র‍্যাব। ঈদকে কেন্দ্র করে সারা দেশে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলো সিসি ক্যামেরার আওতায় নেওয়া হয়েছে বলে জানান সংস্থাটির অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল মো. কামরুল হাসান। আজ শনিবার রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ ময়দান পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কর্নেল মো. কামরুল হাসান এ তথ্য জানান। মো. কামরুল হাসান বলেন, ‘ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে সারা দেশে র‍্যাব বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। বৃদ্ধি করেছে গোয়েন্দা নজরদারি। এর পাশাপাশি আমাদের প্রতিটি ব্যাটালিয়ন তাদের নিজ নিজ এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। যার সার্বিক সমন্বয়ের দায়িত্ব র‍্যাব সদর দপ্তর পালন করছে।’ ‘এ নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে আমাদের মোটারসাইকেল ও ফুটপেট্রলসহ বিভিন্ন ধরনের টহল থাকবে। আমাদের গোয়েন্দা দল সারা দেশে কাজ করছে। এ ছাড়া বিভিন্ন স্থানে অবজারভেশন পোস্ট ও চেক পোস্ট নির্মাণের মাধ্যমে আমরা নজরদারি ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা করে যাব। বিশেষ বিশেষ স্থাপনাগুলোতে আমরা সিসি টিভির মনিটরিং-এর ব্যবস্থা করছি।’ মো. কামরুল হাসান আরও বলেন, ‘জাতীয় ইদগাহে আমরা বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। আমাদের স্পেশাল টিম, ডগ স্কোয়ার্ড ও সুইপিং টিমের মাধ্যমে আমরা এ এলাকায় নিরাপত্তা দেব। এ ছাড়া অন্যান্য নিরাপত্তা ব্যবস্থাও থাকবে এখানে। একই সঙ্গে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে আমরা জনগণের আগমন নির্বিঘ্ন ও নিরাপত্তা বিধান করতে আমরা সদা প্রস্তুত থাকব।’ যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় র‌্যাবের পর্যাপ্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। সারা দেশব্যাপী পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে সার্বিক নিরাপত্তার জন্য থাকবে র‌্যাবের কন্ট্রোল রুম, স্ট্রাইকিং রিজার্ভ, ফুট ও মোবাইল পেট্রল, ভেহিক্যাল স্ক্যানার, অবজারভেশন পোস্ট, চেক পোস্ট এবং সিসিটিভি মনিটরিং। ঈদগাহে নিরাপত্তা ব্যবস্থা মো. কামরুল হাসান বলেন, ‘ঢাকা শহরসহ দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহে (জাতীয় ঈদগাহ, শোলাকিয়া ঈদগাহ ও দিনাজপুর বড় ঈদগাহ) নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে। গুরুত্বপূর্ণ ঈদগাহে নিরাপত্তা সুইপিং করা হবে। ‘জাতীয় ঈদগাহে পর্যাপ্ত ইউনিফর্ম ও সাদা পোশাকে টহল থাকবে। পাশাপাশি র‌্যাব স্পেশাল ফোর্স মোতায়েন করা হবে। জাতীয় ঈদগাহে ডগ স্কোয়াড ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট কর্তৃক নিরাপত্তা সুইপিং করা হবে।’ মো. কামরুল হাসান বলেন, ‘যেকোনো নাশকতা বা হামলা মোকাবিলায় র‌্যাবের স্পেশাল ফোর্স-এর কমান্ডো টিমকে সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পাশাপাশি, যেকোনো পরিস্থিতিতে র‌্যাব এয়ার উইং-এর হেলিকপ্টার সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছে।’ ‘সব মেট্রোপলিটন শহর, জেলা শহর ও উপজেলা পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায়/প্রবেশদ্বারে চেকপোস্ট স্থাপন করা হবে। সব মেট্রোপলিটন শহর ও গুরুত্বপূর্ণ জেলা শহরে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সার্বক্ষণিক প্রয়োজনীয় সংখ্যক ফোর্স রিজার্ভ থাকবে।’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply