Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » বর্জ্য অপসারণের চ্যালেঞ্জ নিয়ে দুই সিটির চমক




বর্জ্য অপসারণের চ্যালেঞ্জ নিয়ে দুই সিটির চমক

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে প্রায় সব বর্জ্য অপসারণ করায় স্বস্তি প্রকাশ করেছেন নগরবাসী। এদিকে, গতকাল সোমবারও যেসব এলাকায় পশু কোরবানি হয়েছে, সেখানকার বর্জ্যও দ্রুত সরানোর ঘোষণা নগর কর্তৃপক্ষের। ত্যাগের মহিমায় প্রতিবছর পবিত্র ঈদুল আজহা এলেও কোরবানি-পরবর্তী পশুর বর্জ্য অপসারণে বরাবরই চ্যালেঞ্জ নিতে হয় নগর কর্তৃপক্ষকে। তবে গত কয়েক বছরের তুলনায় বেঁধে দেয়া সময়ে পশুর বর্জ্য অপসারণে বেশ চমক দেখিয়েছে তিলোত্তমা ঢাকার দুই করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। ঈদের দ্বিতীয় দিনে অনেকে কোরবানি করায় পশুর বর্জ্য জমে দক্ষিণের বিভিন্ন স্থানে। তবে পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা দ্রুত সময়ের মধ্যে তা সরিয়ে নেন। যদিও সোমবার (১১ জুলাই) সকাল থেকে ঢাকা দক্ষিণের খিলগাঁও, দয়াগঞ্জ, ওয়ারীর বিভিন্ন স্থানে বর্জ্যের স্তূপ দেখা গেলেও বেলা বাড়তেই তা সরিয়ে ফেলে নগর কর্তৃপক্ষ। ডিএসসিসির ৫৮টি ওয়ার্ড থেকে দ্বিতীয় দিনের কোরবানির পশুর শতভাগ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের। তিনি জানান, উত্তর শাহজাহানপুর, রহমতগঞ্জ ও শ্যামপুর কদমতলী পশুর হাট থেকে শতভাগ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। পোস্তগোলা শ্মশানঘাট সংলগ্ন পশুর হাট থেকে ৯৮ শতাংশ এবং ধোলাইখাল পশুর হাট থেকে ৯০ শতাংশ বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। বাকি পশুর হাটগুলো থেকে গড়ে প্রায় ৮৫ শতাংশ বর্জ্য অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে। আরও পড়ুন: নির্ধারিত সময়েই বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে: আতিক ৯ জুলাই রাত ১১টা থেকে ১১ জুলাই সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত অর্থাৎ গত ৪৩ ঘণ্টায় ২ হাজার ৯৯৭টি ট্রিপের মাধ্যমে মোট ১২ হাজার ৬৪২ দশমিক ৬৮ টন কোরবানির পশুর হাট ও পশুর বর্জ্য অপসারণ ও মাতুয়াইল কেন্দ্রীয় ভাগাড়ে স্থানান্তরপূর্বক অপসারণ করা হয়েছে। এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের শতভাগ এলাকায় বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে কোরবানির ময়লা অপসারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম। এ ছাড়া উত্তরের বিভিন্ন এলাকার অলিগলি রাস্তাঘাট পরিষ্কার থাকায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে সাধারণ মানুষ ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন মিলে প্রায় ১৭ হাজার মেট্রিক টন কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply