Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » সিরিজ জিততে বাংলাদেশের চাই ১৫৭ রান




সিরিজ জিততে বাংলাদেশের চাই ১৫৭ রান

বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের ম্যাচ। ছবি-সংগৃহীত ইনিংসের শুরুটা দারুণ হয় বাংলাদেশের। মেহেদী-সৈকতদের দাপুটে বোলিংয়ে জিম্বাবুয়ের টপ অর্ডার নাড়িয়ে দেয় বাংলাদেশ। কিন্তু চরম বিপদে পড়া জিম্বাবুয়ের ভাগ্য বদলে যায় এক ওভারেই। বাংলাদেশি অফ স্পিনার নাসুম আহমেদকে পিটিয়ে এক ওভারেই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেন রায়ার্ন বার্ল। ফলে নড়বড়ে শুরুর পরও শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশকে ১৫৭ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। আজ মঙ্গলবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে স্কোরবোর্ডে ১৫৬ রান সংগ্রহ করেছে জিম্বাবুয়ে। হারারের স্পোর্টস ক্লাব মাঠে এই ম্যাচেও টসে জিতে ব্যাটিং নেয় জিম্বাবুয়ে। আগে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার চেজিস চাকাভা ও ক্রেইগ আরভীনের ব্যাটে উড়ন্ত শুরু করে স্বাগতিকরা। কিন্তু কিছুক্ষণ পরই উইকেট নিয়ে জিম্বাবুয়ের ওপেনিং জুটি ভাঙেন একাদশে ফেরা নাসুম আহমেদ। বাঁহাতি এই স্পিনারের ডেলিভারি কাভারের উপর দিয়ে খেলার চেষ্টা করেন চাকাভা। কিন্তু লাফিয়ে ক্যাচ মুঠোয় জমান আফিফ হোসেন। ভাঙেন ২৯ রানের জুটি। ১০ বলে দুই চার ও এক ছক্কায় চাকাভা করেন ১৭। এরপর ষষ্ট ওভারে আক্রমণে এসে জিম্বাবুয়েকে জোড়া ধাক্কা দেন মেহেদী হাসান। তুলে নেন আক্রমণাত্মক ব্যাটার ওয়েসলি মাধাভেরে ও সিকান্দার রাজাকে। দারুণ ইয়র্কারে মাধাভেরেকে বোল্ড করেন মেহেদী। এরপর উইকেটে আসা রাজাকে দেন গোল্ডেন ডাকের স্বাদ। মেহেদীকে স্লগ করে মারার চেষ্টায় ফাইন লেগে ক্যাচ দেন রাজা। আগের ম্যাচে ৫ শিকার নেওয়া সৈকত আজ উইকেটের জন্যই ছটফট করছিলেন। অবশেষে শন উইলিয়ামসকে নিজের প্রথম শিকার বানিয়ে স্বস্তি পান এই ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেওয়া সৈকত। ৮ বলে ২ রান করে বিদায় নেন উইলিয়ামস। জিম্বাবুয়ের পরের উইকেট নেন একাদশে ফেরা মাহমুদউল্লাহ। বোলিংয়ে এসেই তিনি বিদায় করেন ক্রেইগ আরভীনকে। ৫৫ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায়। তখন ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ পেয়ে যায় বাংলাদেশ। কিন্তু হুট করেই বদলে যায় দৃশ্যপট। নাসুমের করা ১৫তম ওভারে খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেন বার্ল। এক ওভারে নাসুমকে ৫ ছক্কা ও এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জিম্বাবুয়েকে ম্যাচে ফেরান তিনি। লুক জঙ্গুয়ের সঙ্গে জিম্বাবুয়েকে শক্ত জুটি উপহার দেন তিনি। এই জুটিতেই বড় সংগ্রহ পেয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। শেষ পর্যন্ত ২৮ বলে ২ বাউন্ডারি ও ৬ ছক্কায় ৫৪ রান করেন বার্ল। তাঁর সঙ্গে ২০ বলে ৩৫ রান করেন লুক জঙ্গুয়ে। বল হাতে বাংলাদেশের পক্ষে সমান দুটি করে উইকেট নেন হাসান মাহমুদ ও মেহেদী হাসান। সমান একটি করে নেন নাসুম আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, সৈকত এবং মাহমুদউল্লাহ। সংক্ষিপ্ত স্কোর: জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১৫৬/৮ (চাকাভা ১৭, আরভীন ২৪, মাধাভেরে ৫, রাজা ০, উইলিয়ামস ২, শুম্বা ৪, বার্ল ৫৪, জঙ্গুয়ে ৩৫, ইভান্স ৫*, নিয়াউচি ১*; মুস্তাফিজ ৪-০-২২-১, মেহেদি ৪-০-২৮-২, সৈকত ৪-০-২২-১, নাসুম ২-০-৪০-১, হাসান ৪-০-২৮-২, মাহমুদউল্লাহ ২-০-৮-১)।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply