Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » ভারতের চ্যালেঞ্জ পরিবারতন্ত্র ও দুর্নীতি, বললেন মোদি




ভারতের সামনে এখন বড় দুটি চ্যালেঞ্জ—পরিবারতন্ত্র ও দুর্নীতি। এ দুটো থেকে দেশকে মুক্তি পেতে হবে। তার জন্য যুব সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। আগামী ২৫ বছরে ভারতকে বিশ্বসেরা করতে নেয়া হবে দৃঢ় অবস্থান। দেশটির ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সোমবার (১৫ আগস্ট) কার্যত হুঙ্কার ছেড়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে দেশটিতে হর ঘর তিরঙ্গা দিবস হিসাবে ১৩ থেকে ১৫ আগস্ট পর্যন্ত নানা কর্মসূচি নেয়া হয়। এদিন অন্য রাজ্যের মতো যথাযোগ্য মর্যাদায় পশ্চিমবঙ্গেও উদযাপিত হয় ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস। করোনার কারণে গেল দুই বছর ভারতের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে ছিল নানা বিধিনিষেধ। এবার সেই সংকট কাটিয়ে লালকেল্লার ময়দানে স্থানীয় সময় ৮টায় দেয়া ভাষণে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পরিবারতন্ত্রের রাজনীতি এবং দুর্নীতিকে ভারতের বড় সংকট ও চ্যালেঞ্জ বলে অবহিত করলেন। বললেন, বর্তমানে দেশ দুটি বড় চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। এক, পরিবারতন্ত্র। দুই, দুর্নীতি। এ দুইয়ের বিরুদ্ধেই সচেতনতা বাড়াতে হবে। দেশের প্রতিষ্ঠানগুলোকে স্বজনপোষণ এবং দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে। শুধু তাই নয়; প্রধানমন্ত্রী আগামী ২৫ বছরের জন্য দিলেন রুপরেখাও। এদিন ভারতের ৭৪ বছরের রীতি ভেঙে নিজেদের তৈরি বন্দুকের শব্দে প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া হলো গান স্যালুট। এতদিন দেয়া হতো ব্রিটেনের তৈরি বন্দুকের শব্দে। প্রধানমন্ত্রী এ প্রসঙ্গেও মন্তব্য করেন, যে আওয়াজ সব সময় শুনতে চাইতাম, ৭৫ বছর পর লালকেল্লায় তিরঙ্গা আনুষ্ঠানিক অভিবাদন পেল ভারতে তৈরি সেই বন্দুকের মধ্যে দিয়ে। অন্যদিকে দেশটির অন্য রাজ্যের মতো কলকাতার রেড রোডে বণার্ঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয় স্বাধীনতা দিবস। রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেয়া হয় গান স্যালুট, আকাশ থেকে পুস্পবৃষ্টির মধ্য দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় রাজ্যের প্রধানকে। দেশের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের দিনে অনেকেই দিয়েছেন মিশ্র প্রতিক্রিয়া। অনেকেই মনে করেন, ভারতের এত বিশাল দেশ হওয়া সত্ত্বেও শুধু রাজনৈতিক কারণে উন্নয়নের শিখরে পৌঁছতে পারেনি। অনেকেই মনে করেন, বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশ হলেও এখনও মুক্তমত প্রকাশে রয়েছে নানা বিধিনিষেধ। অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য প্রয়োজন রাজনৈতিক সংস্কার। বিভিন্ন দুর্নীতি ইস্যুতে যেভাবে দেশ ও রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা জড়িয়ে যাচ্ছেন, তাতে ভারতের নতুন প্রজন্ম রাজনীতি বিমুখ হয়ে পড়ছেন বৈকি। প্রধানমন্ত্রী মোদির ভাষণের মধ্যদিয়েও চলমান সংকট ফুটে উঠেছে বলে মত সাধারণের।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply