Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে এখনই বিক্রি করে দেয়া উচিৎ




ব্রাইটনের কাছে হেরে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে এবারের মৌসুমে শুরুটা ভালো হয়নি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। রেড ডেভিলদের কোচ এরিক টেনের সরল স্বীকারোক্তি- দলের খেলোয়াড়দের রয়েছে আত্মবিশ্বাসের অভাব। ঘরের মাঠ ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইউনাইটেডের এমন হার সমর্থকরা স্বাভাবিকভাবেই মানতে পারছে না। দলটির সাবেক রাইটব্যাক গ্যারি নেভিল দলের এমন পারফরম্যান্সে চরম নাখোশ। ইউনাইটেড বিক্রির জন্য ক্লাবটির মালিক গ্লেজার পরিবারকে আহ্বানও জানিয়ে বসে আছেন তিনি। Reneta June নেভিলের ভাষ্য, ‘গ্লেজার পরিবারের ফুটবল ক্লাবটি এখনই বিক্রি করার সেরা সময় এসেছে।’ বিজ্ঞাপন রোববার রাতে ম্যাচের প্রথমার্ধেই দুই গোল হজম করে বসে স্বাগতিকরা, বিরতির পরে ব্রাইটন নিজেদের জালে বল জড়িয়ে দিলে ইউনাইটেড এক গোলের ব্যবধান কমাতে পারে। সেটা জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। বিষয়টি মানতে না পারা নেভিল বেশ বিরক্ত। ‘লিগের খেলায় প্রতিপক্ষের জন্য তারা সবচেয়ে সহজ দল। এটা ভীষণ উদ্বেগজনক। তাদের আন্তরিকতার অভাব থাকাটা অবিশ্বাস্য। মৌসুমের আবারও ভালো করার পথে এটি টেন হাগের জন্য বড় ধাক্কা হবে।’ ‘ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের খেলোয়াড়দের যারা দেখেছে, তারা সবাই বলতে পারবে এটি তাদের পরিচিত পারফরম্যান্স। কোচের উপরে থাকা কর্তাদের জানা উচিৎ ছিল, তাকে যে স্কোয়াড দেয়া হয়েছে তাতে এই পরিস্থিতিটা গ্রহণযোগ্য কিনা।’ ‘স্কোয়াডে খেলোয়াড় যুক্ত করার ক্ষেত্রে আগের চেয়ে আরও ভালো কাজ দরকার ছিল। ট্রান্সফার উইন্ডোতে এখনও সময় আছে। কিন্তু এগুলো নিয়ে কাজের জন্য কোচের আরও তিন থেকে চার সপ্তাহ প্রয়োজন।’ ‘প্রত্যেক কোচ মনে করেন, তারা আগের কোচের চেয়ে খেলোয়াড়দের নিয়ে ভালো করতে পারবেন। কারণ তারা বিশ্বাস করেন নিজে একজন ভালো কোচ। বাস্তবতা হল, তিনি দেখেছেন সেই খেলোয়াড়রা আজ কতটা করতে সক্ষম।’ ‘আমি মনে করি না যে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোনো ভক্ত বা পণ্ডিত গত ১২ মাসে এই দলটিকে ভিন্নভাবে দেখেছে। একই খেলোয়াড় আগের অবস্থানেই খেলেছেন। আমরা যা দেখেছি, তার থেকে ভিন্ন কিছু আশা করেছিলাম। বাস্তবতা হল সেই খেলোয়াড়দের বদলে আরও ভালোদের আনার বা সমর্থনের দরকার।’ ‘তারা ছয়, আট বা ১২ মাস আগেই জানতো যে এই গ্রীষ্মে স্কোয়াডে খেলোয়াড় আনা প্রয়োজন। হুয়ান মাতা এবং নেমাঞ্জা মাতিচের মতো খেলোয়াড়রা চলে যাচ্ছিল। তারা জানতো অ্যান্টনে মার্শাল, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সমস্যা শেষের পথে আছে। এডিনসন কাভানি চলে যাচ্ছে, ম্যাসন গ্রিনউডের ক্লাবের সঙ্গে অবস্থা আগের মতো নেই। এই ব্যাপারগুলোর সঙ্গে আমরা দীর্ঘ সময় ধরে পরিচিত। একজন অসামান্য কোচকে তার প্রয়োজনীয় উপাদান দেয়া হয়নি, যাতে তিনি একটি পুনরুজ্জীবিত স্কোয়াড দিয়ে মৌসুম শুরু করতে পারেন।’ যদি তারা ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংকে পায়, সেটি একটি সফল উইন্ডো হবে। এটা অবশ্য হওয়ার নয়। তাদের ডি ইয়ংয়ের চেয়ে অনেকবেশি ভালো কিছুর প্রয়োজন ছিল। ডি ইয়ংকে তারা নাও পেতে পারে। যদিও আশা করি তারা একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় হিসেবে কোচের জন্য তাকে আনার চেষ্টা করবে। ক্লাবে কিছুটা আতঙ্ক থাকবে, কারণ মিডিয়া ও সমর্থকদের চাপ অনেকবেশি হবে।’






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply