Sponsor



Slider

বিশ্ব

জাতীয়

রাজনীতি


খেলাধুলা

বিনোদন

ফিচার


যাবতীয় খবর

জিওগ্রাফিক্যাল

ফেসবুকে মুজিবনগর খবর

» » » » » নজিরবিহীন নিরাপত্তা পাচ্ছেন ইমরান খান




পাকিস্তানের পার্লামেন্টে বিরোধীদলের আনা অনাস্থা ভোটে হেরে প্রধানমন্ত্রিত্ব হারিয়েছিলেন ইমরান খান। দেশটির ইতিহাসে তিনিই একমাত্র প্রধানমন্ত্রী যাকে এভাবে ক্ষমতা ছাড়তে হয়েছিল। তবে পাকিস্তানের সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী আরও একটি ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম। তা হলো দেশটির সাবেক তিন প্রধানমন্ত্রী শহীদ খাকান আব্বাসি, রাজা পারভেজ আশরাফ ও ইউসুফ রাজা গিলানির চেয়ে বেশি নিরাপত্তা পাচ্ছেন তিনি, যা দেশটির ইতিহাসে নজিরবিহীন। সংবাদমাধ্যম দ্য নিউজ জানিয়েছে, ইমরান খানকে বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ২৫৫ জন সদস্য নিরাপত্তা দিচ্ছে। তার নিরাপত্তায় স্বল্প সংখ্যক ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষীও মোতায়েন রয়েছে। সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিশ্চিতে পাঁচটি গাড়ি ও জ্যামারও বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। আরও পড়ুন : ‘কেউ খবর নিচ্ছে না’, পাকিস্তানে বন্যা দুর্গতদের বাঁচার লড়াই অন্যদিকে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শহীদ খাকান আব্বাসির জন্য কোনো সরকারি নিরাপত্তারক্ষী নেই। তবে ইউসুফ রাজা গিলানির ক্ষেত্রে মাত্র তিনজন হাউস গার্ড রয়েছে। এ দুজনের চেয়ে সাবেক আরেক প্রধানমন্ত্রী রাজা পারভেজ আশরাফের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কিছুটা বেশি। তার জন্য তিনজন বন্দুকধারী এবং দুজন এফসি গার্ড বরাদ্দ রয়েছে। এ ছাড়া কোথায় যাওয়ার সময় পুলিশের প্রটোকল পান সাবেক এই সরকার প্রধান। অন্যদিকে ইমরান খানের নিরাপত্তায় কেপিকে, জিবি পুলিশ, এফসি, রেঞ্জার্স, আসকারি গার্ড, বানিগালা সিকিউরিটি গার্ডসহ বিভিন্ন দফতরের নিরাপত্তা কর্মীদের মোতায়েন করা হয়েছে। তার জন্য এসপি লেভেলের পুলিশ অফিসার, চারজন ইন্সপেক্টর, দুইজন সাব-ইন্সপেক্টর, ১৯ জন সহকারী সাব-ইন্সপেক্টর, ১৭৯ জন কনস্টেবল, দুজন নারী পুলিশ অফিসার, দুজন স্পেশাল ব্রাঞ্চের কর্মী, ১৫ জন সিটিডি ফোর্সের কর্মকর্তা, তিনজন চালক এবং ২৮ জন গার্ড মোতায়েন রয়েছে। আরও পড়ুন : ঝানু সিআইএ কর্মকর্তাকে লবিস্ট নিয়োগ করেছিল ইমরানের পিটিআই এদের মধ্যে ইসলামাবাদ পুলিশের ৭৭ জন, কেপি থেকে ৫৭ জন, জিবি পুলিশের আটজন, এফসি থেকে ৭৮ জন, রেঞ্জার্সের ছয়জন, আসকারি গার্ডের ৯ জন, বানিগালা নিরাপত্তারক্ষীদের ২০ জন সদস্য রয়েছে। ইমরান খানকে তার নিরাপত্তার জন্য দেওয়া সরকারি যানবাহনগুলো হচ্ছে একটি ল্যান্ড ক্রুজার, দুটি জ্যামার গাড়ি (জিবি এবং কেপি পুলিশের একটি করে) এবং দুটি পিকআপ। সম্প্রতি, রাওয়ালপিন্ডি এলাকায় ইমরান খানের গাড়ি বহরের একটি ল্যান্ড ক্রুজারে শর্ট-সার্কিটের কারণে আগুন লেগে যায়। জানা গেছে, ওই ল্যান্ড ক্রুজারটি (আইডিএফ-৪১৯৪) বুলেটপ্রুফ ছিল। ওই ঘটনার সময় শুধুমাত্র নিরাপত্তায় নিযুক্ত কর্মকর্তারাই গাড়ির ভেতরে ছিলেন এবং সবাই নিরাপদেই ছিলেন।






«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply